চোট পেয়ে হাসপাতালে স্বর্ণজয়ী মারজান

সাউথ এশিয়ান গেমসে কারাতে স্বর্ণ জয়ের একদিন পরেই গুরুতর চোটে পড়েছেন বাংলাদেশের মারজান আক্তার প্রিয়া। আজ বুধবার দলগত ইভেন্টে লড়াইয়ের সময় আঘাত পেয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন এই অ্যাথলেট।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা কাজি আরিফ বিল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, ইভেন্ট ভেন্যু সাতদাবাতোর ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস কমপ্লেক্সে শ্রীলঙ্কার প্রতিযোগীর সঙ্গে লড়াইয়ের এক পর্যায়ে চোয়ালে আঘাত পান প্রিয়া। সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসকরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। এরপর তাকে স্থানান্তর করা হয় ব্লু ক্রস হাসপাতালে।

হাসপাতালের অর্থো সার্জন বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট প্রাজ্জ্বল মান শ্রেষ্ঠ জানিয়েছেন, প্রিয়াকে আপাতত জরুরি বিভাগে রাখা হয়েছে। তার সিটি স্ক্যান করা হবে। এরপরই একজন নিউরো সার্জন তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবেন।

ওই চিকিৎসক আরও বলেন, ‘কিছুটা নিদ্রালু অবস্থায় রয়েছে সে। ঘাড়ে ব্যথা অনুভব করছে। মস্তিষ্কে কোনো সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। আমাদের নিউরো সার্জন কিছুক্ষণের মধ্যে তাকে পরীক্ষা করে দেখবেন। এরপর যেসব পরীক্ষা করা দরকার সেগুলো করা হবে।’

হাসপাতালে প্রিয়ার সঙ্গে থাকা আরেক বাংলাদেশি অ্যাথলেট আবিদা সুলতানা বলেন, ‘তখন দ্বিতীয় বাউটের খেলা ছিল। শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড় অনেক জোরে মেরেছে মারজানকে। এটা অবশ্য খেলারই অংশ। এ জন্য রেফারি ফাউলও দেন। ও বারবার বলছিল, আমি খেলতে চাই। আমাকে খেলতে দাও। কিন্তু এই অবস্থায় কোনোভাবেই ওকে খেলতে দেবে না চিকিৎসকেরা। ওর ঘাড়ের পেছনে এখনো ব্যথা রয়েছে। চিকিৎসা চলছে। আশা করি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে মারজান।’

গতকাল মঙ্গলবার মেয়েদের কুমিতে অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজির ফাইনালে পাকিস্তানের কউসার সানাকে ৪-৩ পয়েন্টে হারিয়ে স্বর্ণ পদক জিতে নেন মারজান আক্তার প্রিয়া।


আরও পড়ুন