কুলিয়ারচর - December 12, 2019

কুলিয়ারচরে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে আল-আমিন (১৮) নামে এক যুবকের উপর হামলার প্রতিবাদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্টিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) বিকালে উপজেলার আগরপুর-লক্ষীপুর রাস্তার জাফরাবাদ মোড়ে স্থানীয় পূর্ব আব্দুল্লাহপুর গ্রাম বাসীর উদ্যোগে এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় আল-আমিনের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন বক্তারা। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে পূর্ব আব্দুল্লাহপুর গ্রামের সর্বস্থরের মানুষ অংশ গ্রহণ করে।

উল্লেখ্য, গত ৭ ডিসেম্বর শনিবার দুপুর ২ টার দিকে উপজেলার পূর্ব আব্দুল্লাহপুর গ্রামের মৃত আহাম্মদ মিয়ার ছেলে আল-আমিন (১৮) গরু ক্রয় করার জন্য ১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা সহ পিক-আপ গাড়ি নিয়ে পার্শ্ববর্তী বাজিতপুর উপজেলার সরারচর বাজারে যাওযার পথে উপজেলার ডুমরাকান্দা রোডের জাফরাবাদ মোড় সংলগ্ন রাস্তায় আসার সাথে সাথে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই গ্রামের মোঃ রায়হান মিয়া (২০), মোঃ জেনারেল মিয়া (৩৫), মুর্শিদ মিয়া (৫৫), রাব্বি মিয়া (২৪), জীবন মিয়া (১৯) ও জাফরাবাদ গ্রামের জামাল মিয়া (৪৫) সহ ৫/৬ জন লোক দেশীয় অস্ত্রাধী নিয়ে তাদের পিক-আপ গাড়ির গতিরোধ করে আল-আমিনের উপর হামলা করে মরধর করে। এ সময় প্রতিপক্ষ আল-আমিনের নিকট থাকা গরু ক্রয়ের ১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। ঘটনার সময় আল-আমিনের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে হামলা কারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা গুরুত্বর রক্তাক্ত ও জ্ঞান হারা অবস্থায় আল-আমিনকে উদ্ধার করে ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্রেরণ করেন। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য আল-আমিনকে জ্ঞান হারা অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় গত ৯ ডিসেম্বর সোমবার আল-আমিনের বড় ভাই মোঃ মনির মিয়া বাদী হয়ে মোঃ রায়হান মিয়াকে প্রধান আসামী করে কুলিয়ারচর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-০৮। ৬ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত আল-আমিনের জ্ঞান ফেরেনি।


আরও পড়ুন