দেশের খবর - December 13, 2019

কুষ্টিয়ায় মদ্য পানে ৩ কলেজছাত্রের মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় বন্ধুর জন্মদিনে কোমল পানীয় টাইগারের সাথে অ্যালকোহল মিশ্রণ পান করে তিন কলেজ ছাত্র মারা গেছে। এই ঘটনায় অসুস্থ রয়েছে আরও দিনজন।

মৃতরা হলেন- শহরের আড়ুয়াপাড়া এলাকার মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে বিকেএসপির বাস্কেট বল খেলোয়ার জাহিদুর রহমান সাজিদ (১৯)থানাপাড়া এলাকার আরমান আলীর ছেলে পাভেল (২০) এবং কুঠিপাড়া এলাকার সাগরের ছেলে ফাহিম (১৮)।

অপর তিনজন- শান্তআতিকুল ও সুরুজদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তাপস কুমার সরকার।

বৃহস্পতিবার বিকেল পৌনে ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৭টার মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয় বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩ টার দিকে পাভেলসাজিদশান্তফাহিমআতিকুল ও সুরুজ প্রায় কাছাকাছি বয়সের ছেলে অসুস্থ হয়ে জরুরি বিভাগে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা পাকস্থলী ওয়াসসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেন। চিকিৎসারত অবস্থায় তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে কোমল পানীয়ের সাথে আরও কোন ধরনের কেমিক্যাল মিশ্রণসহ পান করায় তার বিষক্রিয়া জনিত কারণে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শী কুষ্টিয়া ইসলামি কলেজ উচ্চ মাধ্যমিক ২য় বর্ষের ছাত্র চিকিৎসাধীন শান্ত বলেনবৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে বন্ধু সুরুজের জন্মদিনের পার্টি উপলক্ষে শহরের প্রধান সড়ক সংলগ্ন পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে কেক কাটাসহ পার্টির আয়োজন ছিল। সেখানে কোমল পানীয় টাইগারসহ হালকা কিছু খাবার ব্যবস্থা ছিল। আতিকুল ইসলাম কটা নামের এক বন্ধু হোমিওপ্যাথি দোকান থেকে একটি শিশিতে অ্যালকোহল নিয়ে আসে। ওইটা কোমল পানীয়ের সাথে মিশিয়ে আমরা সবাই পান করি। খাওয়া দাওয়া শেষে আড্ডা দিয়ে বাড়ি চলে যাই। বেলা তিনটার দিকে আমি চরমভাবে পেটে ব্যথাসহ শ্বাসকষ্টে অসুস্থ হয়ে পড়ি। হাসপাতালে আসার পর দেখি আমরা যে কয়জন পার্টিতে ওই পানীয় খেয়েছিলাম সবাই অসুস্থ হয়ে এখানে এসেছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে দায়িত্ব পালনকালে উপ-পরিদর্শক সামছুর রহমান বলেনএখনও বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি। তবে প্রাথমিকভাবে যা পেয়েছিহাসপাতালে ভর্তি ছয় কলেজ ছাত্র বন্ধুর জন্মদিনে পার্টির সময় মাদক জাতীয় কিছু পান করায় তার বিষক্রিয়া ঘটে থাকতে পারে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা জানানমাদক জাতীয় কিছু পান করে শিক্ষার্থীর মৃত্যু ও অসুস্থ হওয়ার বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে। এই মুহূর্তে বিস্তারিত বলা সম্ভব নয়। চিকিৎসকদের মতে চিকিৎসাধীন বাকিরাও বিপদমুক্ত নয় বলে জানা গেছে।

পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি জানানঅসুস্থ ছয়জনই কুষ্টিয়া ইসলামীয়া কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র। এই ঘটনায় এখনও থানায় কোন মামলা হয়নি।


আরও পড়ুন