পাকিস্তান যাচ্ছে টাইগাররা!

পাকিস্তান সফর নিয়ে এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। নাজমুল হাসান পাপন বলছেন, পিসিবিকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে টেস্ট খেলার কথা বলা হচ্ছে। তারা বলছে, আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ হওয়ায় আগে টেস্ট খেলা হোক তার পর না হয় অন্য কোনো সময় টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলা যাবে। গতকাল পাকিস্তান সফর নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন বিসিবি কর্তারা। মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, মুশফিক প্রথম থেকেই পাকিস্তান যেতে আগ্রহ দেখায়নি। তবে কোচ যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

আইসিসির ভবিষ্যৎ সূচি অনুযায়ী, চলতি মাসের শেষ দিকে দুটি টেস্ট ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলতে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। বিসিবির তরফ থেকে পিসিবিকে জানানো হয়েছে, আমরা ওখানে (পাকিস্তান) বেশি সময় অবস্থান করার পক্ষপাতি নই। সে ক্ষেত্রে যে তিনটি টি-টোয়েন্টি আছে, সেই ম্যাচগুলো আমরা খেলতে চাচ্ছি এবং দুটি টেস্ট ম্যাচ নিরপেক্ষ ভেন্যুতে আয়োজন করা যেতে পারে।

তবে পিসিবি চাইছে দেশের মাটিতেই টেস্ট খেলতে। তারা তাদের সিদ্ধান্তে অনড়। কিন্তু বিসিবি ঝুঁকি নিতে চাইছে না। এ জন্যই সংক্ষিপ্ত সফরে যাওয়ার কথা জানিয়েছে। বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, নিরাপত্তা সংস্থার কাছ থেকে সবুজ সংকেত পেয়েছেন। পিসিবিকে জানানো হয়েছে, তারা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে পাকিস্তান যেতে চান। তবে নাজমুল হাসান পাপন এমনটাও আভাস দিয়েছেন, যদি পিসিবির তরফ থেকে একটা টেস্ট খেলতে পাকিস্তান যেতে বলা হয় তা হলে বিসিবি হয়তো ‘না’ বলবে না। কেননা, তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে যে কদিন পাকিস্তানে থাকতে হবে তার চেয়ে কম দিন থাকতে হবে একটি টেস্ট ম্যাচ খেললে। তবে কোনো কিছুই এখনো চূড়ান্ত নয়।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ হওয়ায় পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট না খেললে কী হতে পারে না পারে তা নিয়ে বোর্ড কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবি সভাপতি এটাও জানিয়ে দিয়েছেন যে, যেহেতু হাতে খুব বেশিদিন সময় নেই তাই আগামীকালই (আজ) জানিয়ে দেওয়া হবে তারা পাকিস্তান সফরে যাবে কি যাবে না। প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই পাকিস্তানে আর টেস্ট ম্যাচ হয়নি। তবে গত বছরের শেষ দিকে শ্রীলংকা তাদের দল পাঠিয়েছে। এরই মধ্য দিয়ে ১০ বছর পর আবারও টেস্ট ক্রিকেট ফিরেছে পাকিস্তানে।


আরও পড়ুন