পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে ইরানের সঙ্গে বসতে চায় ইউরোপীয়রা

ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে যে সংকট দেখা দিয়েছে তা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছে ব্রিটেন,ফ্রান্স ও জার্মানি। এ লক্ষ্যে তারা ইরানের সঙ্গে নতুন করে বসতে চায় বলে দুই ইউরোপীয় কূটনীতিকের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

গত সপ্তাহে তেহরান পরমাণু চুক্তি থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইউরোপের পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া হলো।

২০১৫ সালে পারমাণবিক কর্মসূচি সীমিত করার এবং ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের শর্তে ছয় জাতি গোষ্ঠীর সঙ্গে তেহরানের চুক্তি হয়। ২০১৮ সালে চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই ট্রাম্প ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। নিষেধাজ্ঞার কারণে আর্থিক সংকটে থাকা ইরান গত বছর থেকে বারংবার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, এ ব্যাপারে চুক্তির অন্য পক্ষরা ব্যবস্থা না নিলে তেহরান পরমাণু সমৃদ্ধ করতে শুরু করবে। গত সপ্তাহে মার্কিন হামলায় নিহত হয় দেশটির কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি। এরপরই ইরান পুরোপুরি পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসার ঘোষণা দেয়।

ইউরোপীয় কূটনীতিকরা জানিয়েছেন, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়নকে চুক্তির সংকট নিরসনে প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছে। এই প্রক্রিয়ার আওতায়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন চুক্তির অপর দুই পক্ষ রাশিয়া ও চীন এবং ইরানকে বিষয়টি অবহিত করবে। এরপর সংকট সমাধানের জন্য ১৫ দিন সময় পাওয়া যাবে। অবশ্য আলোচনার মাধ্যমে এই সময়ের মেয়াদ বাড়ানো যাবে। এই সময়ের মধ্যে সংকটের সমাধান না হলে ইরানের ওপর যথারীতি জাতিসংঘের আগের প্রস্তাব অনুযায়ী, আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞাগুলো আরোপিত হয়ে যাবে।

এক কূটনীতিক বলেছেন, ‘নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা আমাদের উদ্দেশ্য নয় বরং চুক্তির মধ্যে সংকট নিরসনের যে প্রক্রিয়া বলা হয়েছে সেভাবে আমরা সংকটের সমাধান করতে চাচ্ছি’।


আরও পড়ুন