ডোমারে বনবিভাগের চোরাইকৃত বাঁশ উদ্ধার, আদালতে মামলা

নীলফামারী ডোমারে বন বিভাগের চোরাইকৃত বাঁশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাগান থেকে রাতের আধারে বাঁশকেটে বিক্রি করার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় বাশঁ বাগানের উপকার ভোগী সভাপতি আব্দুর রউফ স্থানীয়দের সহযোগীতায় বাঁশগুলো আটক করে বনবিভাগে খবর দিলে বন কর্মকর্তা রেজাউল করিম ঘটনাস্থলে গিয়ে ২৪টি বাঁশ জব্দ করে বনবিভাগে নিয়ে আসেন।

ডোমার বন বিভাগের আওতাধীন ছোটরাউতা বাঁশ বাগানের সভাপতি আব্দুর রউফ জানান, ছোট রাউতা গ্রামের মৃত সামছুল হকের ছেলে নুরল হক(৪০) রাতের আধারে ২৪টি বাঁশকেটে বিক্রি করার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় বাঁশগুলো আটক করলেও নুরল হক ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে ডোমার বন বিভাগের কর্মকর্তা রেজাউল করিমকে বিষয়টি মোবাইল ফোনে জানানো হলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ২৪টি বাশ জব্দ করে নিয়ে যান তিনি।

ডোমার বন বিভাগের কর্মকতা রেজাউল করিম জানান, খবর পেয়ে রবিবার ভোর রাতে ঘটনাস্থলে পৌছে ২৪টি বাঁশ জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত বাঁশগুলো বর্তমানে আমাদের অফিস চত্তরে আছে। এ বিষয়ে নুরল ইসলামের বিরুদ্ধে বাঁশ কাটার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় তার বিরুদ্ধে নীলফামারী আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং পিও-৪।

উল্লেখ্য, উক্ত বাঁশ বাগান থেকে প্রায় বাঁশ চুরির ঘটনা ঘটলেও কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে উদাসীন বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন।


আরও পড়ুন