বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সঙ্গে থাকবে নিরাপত্তা দলও

তিন ধাপে তিনবার পাকিস্তান সফরে যাবে বাংলাদেশ দল। সফরে তিনবারই বাংলাদেশ দলের সঙ্গে থাকবে নিজেদের নিরাপত্তা দল।

সরকার থেকে পাকিস্তান সফরের অনুমতি চেয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে সরকার পাকিস্তানে যাওয়ার ছাড়পত্র দিলেও সেখানে জুড়ে দেওয়া হয় দুই শর্ত।

প্রথম শর্ত ছিল, সফর হতে হবে সংক্ষিপ্ত। নির্দিষ্ট কোনো দিন উল্লেখ না থাকলেও বিসিবি মনে করছে, ৭-৮ বা ৯-১০ দিন বোঝানো হয়েছে। 

পিসিবি ও বিসিবি যে সূচি চূড়ান্ত করেছে, তাতে তিনবার পাকিস্তান সফর করলেও কোনোবারই ১০ দিনের বেশি পাকিস্তানে থাকতে হবে না বাংলাদেশকে।

জিও-তে (গর্ভনমেন্ট অর্ডার) মন্ত্রনালয় থেকে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ দলের সঙ্গে নিরাপত্তা দলও যেতে হবে। বিসিবিও তা মেনে নিয়েছে এবং পিসিবিকে তা জানানো হলে তারাও বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছে। ফলে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে তিনবারই পাকিস্তানে উড়ে যাবে নিরাপত্তা দল।

এর আগে গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল নিজেদের সাথে রেখেছিল নিরাপত্তা দল। গত বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার পর আয়ারল্যান্ড সফরে নিরাপত্তা প্রতিনিধি নিয়ে গিয়েছিল বিসিবি।

পাকিস্তান সফরে ৩০ জন ক্রিকেটার ও টিম ম্যানেজমেন্ট সদস্যের জিও হয়েছে। টি-টোয়েন্টি, টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটারদের প্রায় সবারই জিও হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক অস্থিরতা বিবেচনায় পাকিস্তানে আপাতত টেস্ট খেলতে রাজি ছিল না বাংলাদেশ। অথচ সেখানে দুটি টেস্টের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি ও একটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ দল। এফটিপির বাইরে গিয়ে ওয়ানডে ম্যাচ যুক্ত করেছে দুই বোর্ড। 

তিন ধাপে পাকিস্তানে যাবে বাংলাদেশ। চলতি মাসেই খেলবে তিনটি টি-টোয়েন্টি। ফেব্রুয়ারিতে একটি টেস্ট এবং এপ্রিলে একটি ওয়ানডে ও একটি টেস্ট।

প্রথম দফায় ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি লাহোরে হবে তিনটি টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে অংশ নিতে আগামী ২২ জানুয়ারি দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল।


আরও পড়ুন