করোনাভাইরাস নিয়ে ফেসবুকে ছড়াচ্ছে ভুয়া তথ্য

চীনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণহানি বেড়েই চলেছে। এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে  ২৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এদিকে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষের দাবি, করোনাভাইরাস নিয়ে ক্রমশই ছড়াচ্ছে ভুয়া তথ্য, যা সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে এবার করোনাভাইরাস সংক্রান্ত তথ্য যাচাইয়ের কাজ শুরু করেছে ফেসবুক। প্রয়োজনে ভুয়া তথ্য মুছে ফেলার সিদ্ধান্ত সোশ্যাল মিডিয়া কর্তৃপক্ষের। সাধারণ মানুষের বিভ্রান্তি কমাতেই নয়া উদ্যোগ ফেসবুক কর্তৃপক্ষের।

জানা গেছে, গ্লোবাল হেলথ অর্গানাইজেশন এবং লোকাল হেলথ অথরিটিসের সঙ্গে ফেসবুকের হেড অফ হেলথ ক্যাং শিং জিনের আলোচনা হয়েছে। বর্তমানে করোনাভাইরাস নিয়ে নানা তথ্য ফেসবুকে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এটা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে থাকা তথ্য সাধারণ মানুষের ভাবনা বাড়াচ্ছে। ফেসবুকে এক শ্রেণির মানুষ করোনা ভাইরাসের উপসর্গ, প্রতিরোধের উপায় এবং সুস্থ হয়ে ওঠার পদ্ধতি নিয়ে নানা তথ্য ছড়িয়ে দিচ্ছেন। 

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বহু মানুষ সত্যাসত্য বিচার না করেই সেই তথ্য বিশ্বাস করতে শুরু করছেন। আবার কেউ কেউ এই তথ্যের মাধ্যমে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন। 

ভুয়া তথ্য যাতে কোনোভাবেই সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করতে না পারে, সেই উদ্যোগ নিতে চলছে ফেসবুক। করনোভাইরাস সংক্রান্ত যে সমস্ত তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেগুলি খতিয়ে দেখার কাজ শুরু হয়েছে। ভুয়া তথ্য হলে তা মুছেও দেওয়া হতে পারে। পাশাপাশি ইনস্টাগ্রামও নিতে পারে একই ব্যবস্থা। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত ভুয়া তথ্য ছড়ালে সেই ব্যক্তির অ্যাকাউন্টও চিরতরে ব্লক করে দেওয়া হতে পারে। টুইটারও প্রকাশিত তথ্য যাচাইয়ের উদ্যোগ নিচ্ছে।

প্রসঙ্গত, চীনে করোনাভাইরাস মহামারির আকার ধারণ করার পর বিশ্বজুড়ে জরুরি সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। যুক্তরাষ্ট্রে ইতিমধ্যেই জারি হয়েছে রেড এলার্ট। কেনিয়া সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আপাতত চীনে কোনো বিমান পাঠানো হবে না। একই পথে হেঁটেছে ইতালি, ইসরায়েল, উত্তর কোরিয়াও।

টেক জায়েন্ট অ‌্যাপল, গুগল এবং মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে আপাতত চীনের ভাইরাস আক্রান্ত অঞ্চলে সংস্থার কাজকর্ম বন্ধ রাখা হয়েছে। রাশিয়া সিদ্ধান্ত নিয়েছে চীনের সঙ্গে তাদের দেশের পূর্বাংশে অবস্থিত ৪,৩০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত বন্ধ রাখবে। 


আরও পড়ুন