কটিয়াদী - February 1, 2020

কিশোরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মানবাধিকার কর্মীর মর্মান্তিক মৃত্যু

কিশোরগঞ্জের মানবাধিকারকর্মী শামীমা সুলতানা ঝর্ণা সড়ক দুর্ঘটনায় মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে কটিয়াদীর গ্রামের বাড়ীতে জানাজার নামাজ শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

গত বুধবার (২৯ জানুয়ারি) কটিয়াদি উপজেলার ঘিলাকান্দি নামক এলাকায় সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে শামীমা সুলতানা ঝর্ণা তার চার বান্ধবীসহ নিয়মিত বাড়ির পাশের মেইন রাস্তায় প্রতিদিনের ন্যায় হাঁটাহাটি করছিলেন। এমন সময় তার পেছনে থাকা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে একটি পিকআপ সজোরে ধাক্কা দেয়। পিকআপের ধাক্কায় সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি শামীমা সুলতানাকে চাপা দিলে তিনি গুরুতর আহত হন।
পরে শামীমা সুলতানাকে দ্রুত উদ্ধার করে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে রাজধানীর আগারগাঁও এর নিউরোসাইন্স হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর স্কয়ার হসপিটাল এবং সর্বশেষ হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালের আইসিইউ’তে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। কিন্তু চিকিৎসকদের অন্তহীন প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে শুক্রবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে শামীমা পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

তার মৃত্যুতে কটিয়াদি উপজেলার ঘিলাকান্দি গ্রাম ও সামাজিক সংগঠন গুলোতে নেমে আসে শোকের ছায়া। আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ নারী নেত্রীবৃন্দ এসে শোক জানিয়েছেন । মৃত্যুকালে তিনি এক মেয়ে, স্বামী, বাবা, ভাই-বোন, আত্বীয়-স্বজন সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। শামীমা সুলতানা ঝর্ণা ছিলেন –ভোরের আলো সাহিত্য আসরের নারী সম্পাদিকা, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার কার্যকরি সদস্য, বনগ্রাম নারী উন্নয়ন সংস্থার সভানেত্রীসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের দায়িত্বশীল কর্মী।


আরও পড়ুন