মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির পর বাংলাদেশের ইনিংস ঘোষণা

প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেটে ৫৬০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসে করেছিল ২৬৫ রান। অর্থাৎ প্রথম ইনিংসে ২৯৫ রানের লিড টাইগারদের। তৃতীয় দিন আরো ৭ ওভার বাকি থাকতেই ইনিংস ঘোষণা করে নেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরি

টেস্ট ক্যারিয়ারে নিজের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি আদায় করে নিলেন মুশফিকুর রহিম। সোমবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টের তৃতীয় দিন শেষ বিকেলে ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশফিক। এর আগে লাঞ্চের পর পরই তুলে নিয়েছিলেন সেঞ্চুরি।

৫০০ ছাড়িয়ে বাংলাদেশ

মিরপুর টেস্টে প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ে ২৬৫ রানের জবাবে রানের পাহাড় দাঁড় করাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ৫০০ ছাড়িয়েছে স্বাগতিকদের সংগ্রহ।

আইন্সলে এনডিলোভুর করা ইনিংসের ১৪৫ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে লিটন দাস তিন রান নিতেই পাঁচশো রানের কোটা পার হয় বাংলাদেশ। টেস্টে এই নিয়ে দশমবারের মতো এক ইনিংসে এমন সংগ্রহ দেখল লাল-সবুজ দল! এর মধ্যে তিনটি পাঁচশো ছাড়ানো ইনিংসই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

টেস্টে তৃতীয় দ্বিশতকের দিকে এগিয়ে চলছেন মুশফিক। অর্ধশতকের কাছে অবস্থান করছেন ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে তার সঙ্গী লিটন দাস। আর বাংলাদেশের লিড আড়াইশোর কাছাকাছি।

১৫০ ছাড়িয়ে মুশফিক, ৪৫০ ছাড়িয়ে বাংলাদেশ

সেঞ্চুরি পূর্ণের পর দারুণ ব্যাটিংয়ে ব্যক্তিগত সংগ্রহের ঝুলি আরও সমৃদ্ধ করে চলছে মুশফিকুর রহিম। দেড়শো ছাড়িয়েছে তার ব্যক্তিগত ইনিংস। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বাংলাদেশের সংগ্রহও। এরই মধ্যে সাড়ে চারশো ছাড়িয়ে দলীয় টোটাল।

চা পানের বিরতি থেকে ফেরার কিছুক্ষণের মধ্যেই দেড়শো ছাড়াই মুশফিকের ইনিংস। এজন্য তাকে খেলতে হয়েছে ২৫৪টি বল। হাঁকান ২৪টি চার! টেস্টে এটা তার দেড়শো ছাড়ানো চতুর্থ ইনিংস।

এর আগে লাঞ্চের বিরতি থেকে ফিরে ১ রান করতেই টেস্টে সপ্তম সেঞ্চুরির দেখা পান ৩২ রান নিয়ে ব্যাটিং শুরু করা মুশফিক। চার নম্বরে নামা এই ব্যাটসম্যান চতুর্থ উইকেট জুটিমে মুমিনুল হকের সঙ্গে ২২২ রানের জুটি গড়েন।

পঞ্চম উইকেটে মোহাম্মদ মিঠুনের সঙ্গে গড়েন ২৭ রানের জুটি। আর ষষ্ঠ উইকেটে লিটন দাসের সঙ্গে তার জুটি এরই মধ্যে ৫০ ছাড়িয়েছে।

টিকতে পারলেন না মিঠুন

দ্রুত রান তুলছিলেন। কিন্তু উইকেটে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা থাকা অবস্থাতেই ফিরতে হল মোহাম্মদ মিঠুনকে। দলীয় ৪২১ রানে পঞ্চম উইকেট হারাল বাংলাদেশ।

আইন্সলে এনডিলোভুর বলটি একটু পেছনে গিয়ে কাট করতে চেয়েছিলেন মিঠুন। ব্যাটের কানায় লেগে বল জমা পড়ে রেজিস চাকাবার গ্লাভসে। রিভিউ নিয়েও পার পাননি মিঠুন। উইকেট ছাড়া হন ২৩ বলে ১৭ রান করে।

তার বিদায়ে ছয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে এসেছেন লিটন দাস। সেঞ্চুরি হাঁকানো মুশফিকের সঙ্গে জুটি গড়েছেন তিনি।

মুমিনুলের বিদায়ে ভাঙল ২২২ রানের জুটি

চতুর্থ উইকেটে মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে অসাধারণ এক জুটি গড়েছিলেন মুমিনুল হক। উভয়ই পেয়েছেন সেঞ্চুরির দেখা। এই জুটির উপর ভর করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে দলীয় সংগ্রহ যখন চারশো ছুঁই ছুঁই তখন আউট হলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

মুমিনুলের বিদায়ে দলীয় ৩৯৪ রানে চতুর্থ উইকেট হারাল বাংলাদেশ। ২২২ রানে ভাঙল চতুর্থ উইকেট জুটি।

আইন্সলে এনডিলোভুর বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হওয়ার আগে ১৩২ রান করেন মুমিনুল। তার ২৩৪ বলের ইনিংসটিতে রয়েছে ১৪টি চারের মার। টেস্টে এটা তার নবম সেঞ্চুরি।

মুমিনুলের বিদায়ে পাঁচ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমেছেন মোহাম্মদ মিঠুন। সেঞ্চুরি হাঁকানো মুশফিকের সঙ্গে জুটি বেধেছেন তিনি। বাংলাদেশের রান ছাড়িয়েছে ৪০০।

লাঞ্চ থেকে ফিরেই মুশফিকের সেঞ্চুরি

সেঞ্চুরি থেকে এক রান দূরে থাকতেই লাঞ্চ বিরতিতে গিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম। বিরতিতে থেকে ফেরা দ্বিতীয় ওভারেই চার হাঁকিয়ে তিন অঙ্ক স্পর্শ করলেন বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

টেস্ট ক্যারিয়ারে এটা মুশফিকের সপ্তম শতক। এজন্য তাকে খেলতে হয়েছে ১৬০ বল; হাঁকিয়েছেন ১৮টি চার! ৩২ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করা মুশফিক ৯৫ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন। পরের ফিফটি পূর্ণ করেছেন ওয়ানডে স্টাইলে, ৬৫ বলে!

আগেই সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছিলেন চতুর্থ উইকেটে মুশফিকের সঙ্গী মুমিনুল হক। এই দুটির রান দুইশো ছাড়িয়েছে। বাংলাদেশের সংগ্রহও চারশোর কাছাকাছি! লিড ছাড়িয়েছে ১০০ রান।

৮৬ রানের লিড নিয়ে লাঞ্চে বাংলাদেশ

মুমিনুল হক ও মুশফিকুর রহিমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে মিরপুর টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বড় লিড নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার আগে তাদের লিড দাঁড়িয়েছে ৮৬ রান; হাতে আছে ছয় উইকেট!

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন উইকেটে ২৪০ রান নিয়ে সোমবার খেলা শুরু করা বাংলাদেশ নতুন করে কোনো উইকেট হারায়নি। লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার সময় স্বাগতিকদের সংগ্রহ ৩৫১। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে দলটির সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ২৪০।

প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ে অল-আউট হয়েছিল ২৬৫ রানে।

টেস্ট ক্যারিয়ারে নবম সেঞ্চুরির দেখা পাওয়া মুমিনুল হক ২০৫ বলে তেরো চারে ১১৯ রানে অপরাজিত আছেন। সেঞ্চুরির একেবারে দ্বারপ্রান্তে অবস্থান করছেন মুশফিক। ১৫৩ বলে সতেরো চারে ৯৯ রানে অপরাজিত তিনি। আর এক রান করলেই টেস্টে সপ্তম সেঞ্চুরির দেখা পাবেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

মুমিনুল-মুশফিক জুটির রান দাঁড়িয়েছে ১৭৯।

মুমিনুলের শতক, মুশফিকের ফিফটিতে লিড নিচ্ছে বাংলাদেশ

মিরপুর টেস্টে স্বচ্ছন্দে ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন মুমিনুল হক। অর্ধশতকের দেখা পেয়েছেন চতুর্থ উইকেট জুটিতে তার সঙ্গী মুশফিকুর রহিম। এই দুইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে লিড নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

৩ উইকেটে ২৪০ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামা স্বাগতিক দল আর ২৬ রান করতেই প্রথম ইনিংসে করা জিম্বাবুয়ের ২৬৫ রান পেরিয়ে যায়। খানিক বাদেই ফিফটি দেখা পান আগের দিন ৩২ রানে অপরাজিত থাকা মুশফিক। অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান টেস্টে তার ২২তম অর্ধশতকটি পূর্ণ করেন ৯৫ বল খেলে, দশটি চারে।

আগের দিন ৭৯ রানে অপরাজিত থাকা মুমিনুল শতক পূর্ণ করেন দিনের ১২তম ওভারে। তিরিপানোকে চার মেরে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান টেস্টে তার নবম শতকটি পূর্ণ করেন ১৫৬ বলে, ১২ চারে।


আরও পড়ুন