দেশের খবর - February 26, 2020

ধুলায় আচ্ছন্ন কাপাসিয়া-ভাকোয়াদী ৮ কি.মি. সড়ক

কাপাসিয়া উপজেলার কাপাসিয়া সদর থেকে বরুন হয়ে ভাকোয়াদী পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। আধা সংস্কার করা এ সড়কের ধুলায় অতিষ্ট এলাকাবাসী।

সড়কে চলাচলকারী যানবাহন ও যাত্রীরা পড়ছে বিপাকে। ধুলার আস্তরণে হারাতে বসেছে সড়কের দুই পাশের সবুজ পরিবেশ। সড়কে পাথরকুচি থাকায় প্রায়ই যানবাহন বিকল হওয়া ঘটনা ঘটছে। আশপাশের ঘর-বাড়ি ও ব্যবসায়প্রতিষ্ঠান অচল হয়ে পড়ছে। পথচারীরা চলছে হাত দিয়ে নাক-মুখ চেপে। সড়ক দিয়ে চলার সময় যানবাহনের দ্রুতগতিতে সৃষ্ট ধুলায় নিঃশ^স নিতে কষ্ট হয় বলে চালক ও যাত্রীরা জানান।

সরেজমিনে দেখা গেছে, খোদাদিয়া, বরুন, কোটবাজালিয়া, ভাকোয়াদী গ্রামের মানুষ ধুলার কারণে নিত্য দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। সংস্কার কাজের জন্য সড়কে ইটের খোয়া বিছিয়ে রাখা হয়। কার্পেটিং না করায় ইটের খোয়া ধুলাবালিতে পরিণত হয়েছে। সড়ক দিয়ে যানবাহন চলার সময় যানবাহনের দ্রুত গতিতে ধুলা উড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে মানুষের বাড়িঘরে পড়ছে। ধুলার কারণে সড়কের দুই পাশের সবুজ চেহারা এখন আরা দেখা যায় না। খোলা খাবারের দোকানের সামনে টানানো হয়েছে কাপড়।

কোটবাজালিয়া গ্রামের কলেজ ছাত্র নাঈম বলেন, ধুলাবালির কারণে ঠান্ডা, সর্দিকাশি লেগেই থাকে। ঘরের ভিতরের পড়ার টেবিল নিয়মিত পরিষ্কার করতে হয়। একদিন টেবিল পরিষ্কার না করলে ধুলার আস্তরণ পড়ে যায়।

পথচারী রফিকুল ইসলাম বলেন, আগেই ভালো ছিল। অন্তত সড়ক দিয়ে হাঁটাচলা করা যেত। এখন নাক মুখ বেঁধে চলাচল করলেও ধুলায় শ^াস-প্রশ^াস বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম। প্রতিদিন গাড়ি মুছতে হয়। ধীরগতিতে যানবাহন চলাচলের ফলে যাত্রীরা বিরক্তবোধ করে। দ্রুতগতিতে দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে।

সড়কে ধুলার কারণে কুয়াশার মতো হয়ে যায় বলে জানান কাপাসিয়া-ভাকোয়াদী সড়কের অটোরিকসা মালিক সমিতির সভাপতি রিপন হোসেন।

কাপাসিয়া উপজেলা প্রকৌশলী এলজিইডি আবুল হাসানাত মহিউদ্দিন বলেন, আমি প্রশিক্ষণের জন্য দেশের বাহিরে ছিলাম কয়েকদিন। আজ মাত্র আসলাম। বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে অবশ্যই দেখব। মানুষের দুর্ভোগ লাঘবের জন্য খুব দ্রুত সড়ক কার্পেটিং এর কাজ শুরু করা হবে।


আরও পড়ুন