কম দামে শেয়ার বিক্রি না করার আহ্বান অর্থমন্ত্রীর

চলমান পুঁজিবাজারের অস্থিরতা কাটাতে বুধবার থেকে বিনিয়োগ করবে ব্যাংকগুলো। তবে এই বিনিয়োগ হবে পর্যায়ক্রমে, যেন বাজার স্থিতিশীল থাকে। এ ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোকে মনিটরিং করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গতকাল অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে স্টেকহোল্ডারদের বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া কম দামে শেয়ার বিক্রি না করতে বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, বিনিয়োগকারীদের অনুরোধ করব তারা যেন করোনায় ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে কম দামে শেয়ার বিক্রি করে না চলে যায়। এ ক্ষেত্রে যেসব ব্যবস্থা নেওয়া দরকার তা আমরা করব। বাংলাদেশ ব্যাংকও সহযোগিতা করছে। তিনি বলেন, ১০ টাকার শেয়ার ৫ টাকা হয়ে গেছে- এটি মেনে নেওয়া যায় না। সাড়ে ৯ টাকা হলেও মানতে পারি। অথচ করোনা ভাইরাস যখন আসেনি, তখন বাজার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে। কিন্তু ভাইরাস হানা দিতেই তা পড়তে থাকে। এ সময় সব বিনিয়োগকারীকে যে জোর করে রাখব, সে ব্যবস্থাও নেই। বিনিয়োগ তুলে নেওয়া তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকেন্দ্রে বিভিন্ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করেন অর্থমন্ত্রী। এতে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকসের (বিএবি) চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন, অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স, বাংলাদেশের (এবিবি) সভাপতি আলী রেজা ইফতেখারসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

পুঁজিবাজার পরিস্থিতির উন্নয়ন ও বাজারে বিনিয়োগের জন্য তফসিলি ব্যাংকগুলোর তহবিল গঠনের বিষয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, এখানে প্রায় ৫০টার মতো ব্যাংক আছে। হঠাৎ করে কেউ ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে ফেলবে এমনটি হবে না। পর্যায়ক্রমে এ টাকা বিনিয়োগ করা হবে। প্রত্যেক ব্যাংক ৩ কোটি টাকা করে শেয়ার কিনলে ১৫০ কোটি টাকা আসবে। আর পাবলিক শেয়ার তো আছেই।


আরও পড়ুন