করিমগঞ্জ - May 20, 2020

মানবিক সহায়তায় ১৮০০ পরিবারে ঈদের আনন্দ

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিপর্যস্ত আজ গোটা বিশ্ব। রুগ্ন ও ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে বিশ্ব অর্থনীতি। করোনা ভাইরাসের সংক্রমন থেকে বাদ যায়নি বাংলাদেশ। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সংক্রমনে পুরো দেশ কার্যত অচল। করোনা ভাইরাস সংক্রমনে গত ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে সাধারণ ছুটি ও জেলা-উপজেলায় লকডাউনের কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত।

এমতাবস্থায় কয়েক দফায় এসব নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত ও কর্মহীন অসহায় মানুষদের ব্যক্তি উদ্যোগে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন একজন আমেরিকা প্রবাসী। নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, করিমগঞ্জ-তাড়াইলের আওয়ামী রাজনীতির প্রিয়মুখ মাহফুজুল হক হায়দার এ ত্রাণ কার্যক্রমে আর্থিক সহায়তা করে আসছেন। তার এ মানবিক কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছেন করিমগঞ্জ-তাড়াইলের সাধারণ মানুষ ও নিম্নবিত্ত কর্মহীন অসহায় মানুষেরা।

গত ২ মাস ধরে চলমান ধারাবাহিক ত্রাণ কার্যক্রমের অংশ হিসাবে এবার মাহফুজুল হক হায়দারের সহায়তায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে করিমগঞ্জ-তাড়াইলের সাধারণ মানুষ ও নিম্নবিত্ত কর্মহীন অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ শুরু হয়েছে। এ ঈদ উপহার করিমগঞ্জ উপজেলার ১১ ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার পর্যাক্রমে ১৮০০ পরিবারে বিতরণ করার কথা রয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে ঈদ উপহারসহ অন্যান্য মানবিক ত্রাণ কার্যক্রমে ইতিমধ্যে মাহফুজুল হক হায়দার প্রশংসনীয় ভূমিকা অব্যাহত রেখেছে। তিনি করোনায় এমন মানবিক উদ্যোগ বাস্তবায়ন করে ফের করিমগঞ্জ-তাড়াইলের সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস জয় করে ভালোবাসার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছেন।

করোনাসৃষ্ট বিপর্যয় মোকাবিলায় দলমতনির্বিশেষে ত্রাণসহায়তা থেকে শুরু করে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে নগদ সহায়তা অব্যহত রেখেছেন এ মানবিক জননেতা। তিনি অসহায় কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্যসহ স্বাস্থ্য-সচেতনা সামগ্রী যথা সময়ে পৌছে দেয়ার জন্য দুই উপজেলার ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগসহ আওয়ামীলীগের অন্যান্য সহযোগী-অঙ্গসংগঠন গুলোকে ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করেছেন। এসব অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা স্বেচ্ছাশ্রমে অকাতরে মাঠে কাজ করছেন।

করোনা প্রাদুর্ভাবের প্রথম প্রহরেই এসব সেবায় আওয়ামী সংগঠনসহ অন্যান্য সামাজিক স্বেচ্ছাসেবীদের মাহফুজুল হক হায়দারে পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সেই যুগান্তকারী বার্তা- সেবা পৌঁছাতে কে আওয়ামী লীগ, কে বিএনপি করে তা প্রাধান্য নয়, মমতাময়ী নেত্রীর মানবতার ভালোবাসা মমতাসহকারে পৌঁছে দিতে হবে বাংলার প্রতিটি ঘরে।

দেশে করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ার পরপরই করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করতে ও সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করতে মাস্ক বিতরণের মধ্যে দিয়ে কার্যক্রম শুরু করেন। এর ধারাবাহিকতায় পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু হয়।

গত ২৪ মার্চ থেকে ধারাবাহিক এই কর্মসূচি পরিচালনা করে আসছেন মাহফুজুল হক হায়দার। এদিন করিমগঞ্জ-তাড়াইলের বিভিন্ন জায়গায় রিকশা চালক, দিনমজুর, পথশিশু এবং ছিন্নমূল মানুষের মাঝে করোনা মোকাবেলায় করণীয় সম্পর্কিত সচেতনামূলক মাইকিং ও লিফলেট বিতরণে সহায়তা করেন। তিনি দলীয় অঙ্গ-সংগঠনের পাশাপাশি করিমগঞ্জ-তাড়াইলের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠনগুলোকে করোনা মোকাবেলায় প্রনোদনার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের সেবা সম্পৃক্ত করেন। করিমগঞ্জ-তাড়াইলের প্রতিটি ইউনিয়নের অসহায় ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ধারাবাহিকভাবে বিতরণ শুরু হয় হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ফিল্টার মাস্ক, জীবাণুনাশক স্প্রে, সাবান ও হ্যান্ড গ্লাভস ।

পরবর্তীতে ২৬ মার্চ সরকার সাধারণ ছুটি ও জেলা-উপজেলায় লকডাউন ঘোষণা করলে কর্মহীন হয়ে পরা অসহায় ও অনহারী মানুষের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়।

এরই প্রেক্ষিতে গত ৪ এপ্রিল করিমগঞ্জ উপজেলার কাদির জঙ্গল ইউনিয়নে কর্মহীন হয়ে পরা অসহায় ও অনহারী ২৫০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এরপর ২৯ এপ্রিল মাহফুজুল হক হায়দারের অর্থায়নে কিশোরগঞ্জ জেলা যুবলীগের কাছে ১৫০ পরিবারের জন্য মানবিক সহায়তা হস্তান্তর করা হয়।

৩ মে করিমগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে মাহফুজুল হক হায়দারের অর্থায়নে করিমগঞ্জ পৌর এলাকাসহ পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের কিছু অংশের ১৫০ পরিবারের মাঝে মানবিক ত্রাণ সহায়তা বিতরণ করা হয়।

৮ মে করিমগঞ্জের গুজাদিয়া ইউনিয়ের খয়রতহাটিতে স্থানীয় সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে করিমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তসলিমা নুর হোসেনের হাতে ৪০ জন প্রতিবন্ধীর জন্য মানবিক ত্রাণ সহায়তা হস্তান্তর করা হয়। এ ত্রাণ সহায়তার অর্থায়ন করেন মাহফুজুল হক হায়দার।

১৫ মে করিমগঞ্জের কাদির জঙ্গল ইউনিয়নের সমাজকর্মী মোঃ খাইরুল ইসলামের উদ্যোগে ১৫০ জন কর্মহীন হয়ে পরা অসহায় ও অনহারী মানুষের মাঝে মানবিক ত্রাণ সহায়তা বিতরণ করা হয়।

এ প্রসঙ্গে মাহফুজুল হক হায়দার জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে চরম খাদ্য সংকটে পড়েছে সাধারণ কেটে খাওয়া লোকজন। জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে ধর্ম, বর্ণ, দল, মত নির্বিশেষে সকল মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলো পূরণ করাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। আল্লাহ দয়ায় যতদিন বেঁচে আছি ততদিন সাধারণ মানুষের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।

কিশোরগঞ্জে জেলা যুবলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক এডভোকেট মীর আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘করোনা ইস্যুতে করিমগঞ্জ-তাড়াইলের কর্মহীন অসহায় মানুষদের জন্য মাহফুজুল হক হায়দার যে ভূমিকা রেখেছে তা প্রশংসনীয় ও দৃষ্টান্তমূলক। সবাই ব্যক্তিগত পর্যায়ে তাদের মতো এগিয়ে এলে এ যুদ্ধে জয়ী হওয়া কষ্টসাধ্য হবে না।’

করিমগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ নেতা আরিফুর রহমান শাহনুর বলেন, ‘হায়দার সাহেব করোনার এই চরম পরিস্থিতিতে যে অবদান রেখেছে এবং রাখছে তা পুরো দেশের মধ্যে একটি দৃষ্টান্ত হতে পারে।’


আরও পড়ুন