একদিনে ৪৩ মৃত্যু, আক্রান্ত ৩৮০৯

চব্বিশ ঘণ্টায় দেশে একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে ১৮ হাজার ৯ টি নমুনা পরীক্ষা করে এই ৩ হাজার ৮০৯ জনের শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

এই নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৭৩৮ জন। আর আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮৭ জন। আর নতুন ১ হাজার ৪০৯ জন নিয়ে মোট সুস্থ হলেন ৫৫ হাজার ৭২৭ জন।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগীর খোঁজ মেলে; এর দশ দিনের মাথায় ঘটে প্রথম মৃত্যু।

দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে রবিবার দুপুরে এসব তথ্য তুলে ধরেন অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

সবশেষ তথ্যানুযায়ী দেশে নমুনা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২১.০৫ শতাংশ, শনাক্তের বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১.২ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৪০.৪৪ শতাংশ।

চব্বিশ ঘণ্টায় যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে ৩০ জন পুরুষ, ১৪ জন নারী। এর মধ্যে হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে ৩০ জনের, ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে বাড়িতে এবং একজনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে।

বরাবরের মতো সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ঢাকা বিভাগে, ২১ জন; এরপরই রয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ ১০ জন। তিনজন করে মত্যু হয়েছে সিলেট ও খুলনা বিভাগে, দুজন করে মৃত্যু হয়েছে রাজশাহী ও বরিশাল বিভাগে এবং একজন করে মৃত্যু হয়েছে রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে।

বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে ৫১-৬০ বছর বয়সীদের মধ্যে, ৬১-৭০ বছর বয়সীদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। সাতজন করে মৃত্যু হয়েছে ৪১-৫০ ও ৭১-৮০ বছর বয়সীদের মধ্যে, দুজনের বয়স ২১-৩০ এবং একজন করে মৃত্যু হয়েছে ৩১-৪০ ও ৮১-৯০ বছরের মধ্যে।

চব্বিশ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে ৭১৪ জনকে, ছাড় পেয়েছেন ৪৬১ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৪ হাজার ৫২৩ জন।

এই সময়ে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে ৩ হাজার ৯০ জনকে, ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৪০৫ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৬৪ হাজার ৫৯৮ জন।


আরও পড়ুন