৩১ বছরের ডায়াবেটিস নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার করোনা জয়

করোনা জয় করে সস্ত্রীক হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন জনপ্রিয় জাতীয় অনলাইন সংবাদপত্র মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠের সম্পাদক ও প্রকাশক বীর মুক্তিযোদ্ধা নিছার আহমদ।

গত ১৪ জুন হঠাৎ করেই তার মধ্যে করোনা উপসর্গ দেখা দিলে তিনি শরীর থেকে পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। পরে ১৮ জুন পাওয়া রির্পোটে তার দেহে কোভিড-১৯ পজিটিভ আসে।

এরপর তিনি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হন। বুধবার (১ জুলাই) চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে সেখান থেকে বাসায় ফিরে যান তিনি।

নিছার আহমদের বড় ছেলে সালাহউদ্দীন আহমদ নাদিম জানান, বাবার চিকিৎসায় হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. মো. হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। চিকিৎসকরা প্রতিনিয়ত বাবার চিকিৎসা দিয়েছেন। এর মধ্যে আরও দুইবার করোনা টেস্ট করেছেন, দুইবারই রেজাল্ট নেগেটিভ এসেছে। বর্তমানে বাবার শরীরে কোনো সমস্যা নেই। তবে তিনি দীর্ঘ ৩১ বছর ধরে উচ্চ মাত্রার ডায়াবেটিসে ভুগছেন। এর জন্য বাসায় এসেও আলাদাভাবে চিকিৎসা চলছে।

এছাড়াও বাবা হাসপাতালে থাকা অবস্থায় অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে খোঁজ নিয়েছেন। আমাদের পরিবার হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. মো. হেলাল উদ্দিন, চিকিৎসক ডা. দুলাল দাস, ডা. রকিবুল হাসান নিশু, ডা. নুসরাত মাহমুদা, ডা. পারভেজসহ জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, সদস্য সচিব ডা. মো. মুজিবুর রহমান, পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট শাহ আজিজুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবদুল্লাহ আল মাসউদ, মেয়র মাহমুদ পারভেজের প্রতি কৃতজ্ঞ।

নিছার আহমদ ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধে ৫ নং সেক্টরের সাব-সেক্টর সুনামগঞ্জে ‘ডি কোম্পানির’ উপ-অধিনায়ক ছিলেন। কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার গুজাদিয়া ইউনিয়নের টামনী আকন্দপাড়ার এ বীর সন্তান বর্ডার পার হয়ে ভারত থেকে গেরিলা ট্রেনিং নিয়ে আসার পরও পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর সাথে সম্মুখ সমরে লড়াই করেছেন। যুদ্ধ করতে করতে পাক বাহিনীকে সামনাসমানি মোকাবেলা করতে গিয়েও মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে এসেছেন বহুবার। তার পিতা মরহুম আব্দুর রাজ্জ্বাক কোম্পানি মুক্তিযুদ্ধের একজন সংগঠক ছিলেন। পিতার নির্দেশেই তিনিসহ আকন্দপাড়া গ্রামের ১৯ জন যুবক ভারতে ট্রেনিং নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন।


আরও পড়ুন