দেশের খবর - July 21, 2020

ডোমারে ‘নির্যাতনে’ হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন গৃহবধূ

নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় দেবর ও শ্বাশুড়ীর নির্যাতনে গুরুতর আহত হয়ে মিনা রানী (৪০) নামের এক গৃহবধুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (২০ জুলাই) রাতে এ বিষয়ে মিনা রানীর ছোটভাই চার জনকে আসামী করে ডোমার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

আসামীরা হলেন, দেবর লক্ষন চন্দ্র রায় (৩৮), জা জনতা রানী রায় (৩০), শাশুড়ী বজে বালা (৫৮), স্বামী হৃদয় চন্দ্র রায় (৪৫)।

অভিযোগে জানা গেছে, প্রায় ২২ বছর পূর্বে বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়ানী বাগডোগড়া এলাকার মৃত দেবেন্দ্র নাথ রায়ের মেয়ে মিনা রানীর সাথে একই ইউনিয়নের বানিয়া পাড়া এলাকার মৃত হরেণ চন্দ্র রায়ের ছেলে হৃদয় চন্দ্র রায়ের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মিনা রানীকে শাশুড়ী, দেবর, জা বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে। স্বামী হৃদয় কোন প্রতিবাদ না করে, তাদের সঙ্গ দেয়। গত ১৯ জুলাই সকালে মিনা রানী বাড়ির কাজ করার সময় তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি ও লাঠি দিয়ে মারধর করে তারা। এলাকাবাসী মিনাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন ডোমার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বিশ্বদেব রায়।


আরও পড়ুন