অনুশীলনে ফিরছেন সাকিব

করোনাকালে নিজের পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন সাকিব। সেখানেই দ্বিতীয় কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন তিনি। দুই কন্যার দেখাশোনা করে সময় কাটছে তার। আগামী দুই সপ্তাহ এভাবেই কাটবে তার সময়। এরপর টানা তিন মাস অনুশীলনের মাধ্যমে ক্রিকেটের জন্য প্রস্তুত করবেন তিনি।

চলতি বছরের ২৮ অক্টোবরে শেষ হচ্ছে সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ। এরপরই অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান মুক্ত। কিন্তু ক্রিকেটে ফেরার আগে নিজের প্রস্তুতিটা ঠিকঠাক মতো নিতে চান সাকিব। সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কঠিন কিছু শর্ত জুড়ে দিয়েছে আইসিসি। এতে ১ বছর বিসিবি বা ফেডারেশন থেকে কোন সুযোগ সুবিধা নিতে পারবেন না সাকিব। নিষেধাজ্ঞার ১২ মাস কোনো ধরনের প্রতিযোগিতা বা চ্যারিটি ম্যাচও খেলা বারণ তার।

নিষেধাজ্ঞার সব শর্ত পূরণ করে প্রায় নয় মাস পার করে দিয়েছেন বাঁহাতি অলরাউন্ডার। সবকিছু ঠিক থাকলে আর তিন মাস পর ২৯ অক্টোবর জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার উপযুক্ত হবেন তিনি। এর জন্য তিন মাস আগে থেকে ফেরার প্রস্তুতি শুরু করতে যাচ্ছেন সাকিব। বাঁহাতি এ অলরাউন্ডারের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ইংল্যান্ডে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছেন তিনি।

ক্রিকইনফোর ‘ক্রিকেটবাজি’ নামের সিরিজের জন্য দীপ দাশগুপ্তকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেন, ‘আগামী মাস থেকে অনুশীলনে ফেরার পরিকল্পনা আছে। (নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার আগে) তিন মাস সময় পাব নিজেকে প্রস্তুত করার জন্য। ক্রিকেটের জন্য আদর্শ গড়নে যাওয়ার জন্য তিন মাসই যথেষ্ট। আপাতত আগামী দুই সপ্তাহ মেয়েদের দেখাশোনা অর্থাৎ পরিবারের সঙ্গেই কাটবে। এরপর ক্রিকেটে মনোযোগ দেব। ’

নিষিদ্ধ হওয়ার আগে গত বছর সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। সেই ম্যাচে ম্যাচসেরাও হয়েছিলেন তিনি। এরপর থেকেই ক্রিকেট থেকে দূরে আছেন তিনি। আগামী ২৯ অক্টোবর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে ৩৩ বছর বয়সী অলরাউন্ডারের।


আরও পড়ুন