সাবেক মেজর সিনহাকে গুলি : চেকপোস্টের সব পুলিশ প্রত্যাহার

কক্সবাজারের টেকনাফে চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত সামরিক বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ নিহতের ঘটনায় সব পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। 

রোববার (২ আগস্ট) বিকেলে এক আদেশে তাদেরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এ কারণে নিরপেক্ষ তদন্তের জন্য ওই চেকপোস্টে যেসব পুলিশ সদস্য দায়িত্বে ছিলেন তাদের সবাইকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে পোস্টটিও তুলে ফেলতে বলা হয়েছে।’ 

এর আগে দুপুরে ধানমন্ডির নিজ বাসভবনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘এ ঘটনায় সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। যেখানে স্থানীয় জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা আছেন। কমিটি নিরপেক্ষ তদন্ত করবে। প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেননা এ ঘটনায় যেই জড়িত থাকুক তাকে অবশ্যই আইনের মুখোমুখি হতে হবে।’

এর আগে শনিবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলিকে আহ্বায়ক করে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ।

কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন কক্সবাজার জেলার একজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবং সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কক্সবাজারের এরিয়া কমান্ডারের একজন প্রতিনিধি। 

পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বলেন, ‘অবসরপ্রাপ্ত একজন সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনার জেরে ইতোমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। ঘটনার তদন্তের স্বার্থে টেকনাফের বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত আলিসহ সব পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রে নতুন করে ২০ পুলিশ সদস্যকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।’


আরও পড়ুন