২৪ ঘণ্টায় আরও ২২ জনের মৃত্যু

দেশে একদিনে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়ে আরও ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ১৫৪ জনে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮৮৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ২ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জন।

আজ রোববার দুপুর আড়াইটায় মহাখালী থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ২১৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং পূর্বের দিনের নমুনাসহ পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ হাজার ৬৮৪টি নমুনা। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১১ লাখ ৮৯ হাজার ২৯৫টি। ২৪ ঘণ্টায় যে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে তাতে শনাক্ত হয়েছেন ৮৮৬ জন। এ পর্যন্ত শনাক্ত ২ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২৪ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ। এ পর্যন্ত শনাক্তের হার ২০ দশমিক ২৪ শতাংশ।’

তিনি বলেন, ‘২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৮৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ ১ লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৯ জন। শনাক্তের বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।’

অধ্যাপক নাসিমা বলেন, ‘২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছেন ২২ জন। এ পর্যন্ত ৩ হাজার ১৫৪ জন মৃত্যুবরণ করলেন কোভিড-১৯ এ। শনাক্তের বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩১ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ২৭ জন আর নারী পাঁচজন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছেন ২ হাজার ৪৭৯ জন, ৭৮ দশমিক ৬০ শতাশ এবং নারী ৬৭৫ জন, ২১ দশমিক ৪০ শতাংশ।’

তিনি বলেন, ‘বয়স বিভাজনে ২৪ ঘণ্টায় যারা মৃত্যুবরণ করেছেন ৩১ থেকে ৪০ বছরের দুইজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের আটজন, ৬১-৭০ বছরের নয়জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের দুইজন।’

ডা. নাসিমা বলেন, ‘২৪ ঘণ্টায় যারা মৃত্যুবরণ করেছেন বিভাগ ভিত্তিক তাদের সংখ্যা-ঢাকা বিভাগ আটজন, চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগে তিনজন করে, রাজশাহী বিভাগে চারজন, বরিশালে দুজন, রংপুর এবং সিলেট বিভাগে একজন করে।’

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। আর গত ১৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর থেকে দিনে দিনে এর সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।


আরও পড়ুন