করিমগঞ্জ - August 11, 2020

ই-নথি কার্যক্রমে দেশসেরা করিমগঞ্জ উপজেলা

ই-নথি কার্যক্রমে সারাদেশের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছে কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলা। এছাড়া জেলা পর্যায়ে এ ক্যাটাগরির ২৫ টি জেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ জেলা ৩য় স্থান লাভ করেছে।

আইসিটি বিভাগের এটুআই এর জুলাই ২০২০ মাসের ই-নথি কার্যক্রমের প্রকাশিত ফলাফলে দেশসেরা হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছে করিমগঞ্জ উপজেলা।

এর আগের মাস জুন ২০২০ এর ই-নথি কার্যক্রমের প্রকাশিত ফলাফলে দেশসেরা হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করে ভাটির রাণী খ্যাত অষ্টগ্রাম উপজেলা।

জুন মাসের মতো জুলাই মাসেও উপজেলা পর্যায়ে নিকলী সারাদেশে চতুর্থ স্থান দখল করেছে।

কিশোরগঞ্জ জেলার অন্য উপজেলাগুলোর মধ্যে ইটনা ১১তম, কটিয়াদী ১৩তম, অষ্টগ্রাম ১৯তম, সদর ৩৫তম, হোসেনপুর ৪৯তম, ভৈরব ৫১তম, বাজিতপুর ৫৪তম, মিঠামইন ৭৫তম, পাকুন্দিয়া ৮৭তম, কুলিয়ারচর ৯৭তম এবং তাড়াইল ১৩৪তম স্থান অর্জন করেছে।

কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কিশোরগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর নির্দেশনায় এই জেলায় অত্যন্ত সফলভাবে ই-নথি কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মানুষ যাতে সহজে তাদের সেবাটা পায়, এজন্যে জেলার প্রতিটি উপজেলায় ই-নথি কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। তারই ফলস্বরূপ জুন মাসে অষ্টগ্রাম উপজেলা এবং জুলাই মাসে করিমগঞ্জ উপজেলা দেশসেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে।

কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী কিশোরগঞ্জ বলেন, ‘দক্ষতার সাথে তথ্য ও প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ জেলার সকল উপজেলায় অত্যন্ত জোরালোভাবে ই-নথি কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। এর মাধ্যমে সবাই খুব সহজে এবং কম সময়ের মধ্যে সেবা পাচ্ছেন।

এই প্রক্রিয়ার ভেতরে অত্যন্ত দক্ষতা ও সফলতার স্বাক্ষর রেখে অষ্টগ্রাম উপজেলার পর এবার করিমগঞ্জ উপজেলা সারাদেশে প্রথম স্থান অর্জন করেছে। এটি নিঃসন্দেহে গর্বের বিষয় এবং এর মাধ্যমে গোটা জেলাবাসী সম্মানিত হয়েছেন।

এই কৃতিত্ব অন্যান্য উপজেলাগুলোর জন্যও আগামী দিনের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।’


আরও পড়ুন