ইটনা - August 12, 2020

ইটনায় বন্যার পানিতে পুকুর তলিয়ে কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

হাওড়ে অকাল বন্যায় উপজেলার কয়েকটি মাছ চাষের পুকুর তলিয়ে কোটি টাকার লোকসানের মুখে মাছ চাষিরা। এর মধ্যে সদরের নয়া হাটি গ্রামের মাছ চাষি রাজন মিয়ার ৫ একর আয়তনের একমাত্র পুকুরটির ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ লক্ষ টাকা।

সরজমিন পরিদর্শনে গেলে মাছ চাষি রাজন মিয়া জানান, পৈতৃক সুত্রে প্রাপ্ত নয়াহাটি গ্রামের পুর্বপাশে আমাদের ভাই ভাই মাছ চাষের পুকুরটিতে আমি এবছর ধারদেনা ও সরকারী বেসরকারী ঋণ নিয়ে পুকুরে মাছ চাষে বিনিয়োগ করি। অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় পুকুরের চারপাশ ডুবে সব মাছ বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। আমি এখন পথে বসে গেছি।

অন্যদিকে সদরের বানিয়াহাটি পুকুরের মাছ চাষি ইকবাল মিয়া, পশ্চিমগ্রাম আলিয়া মাদ্রাসা পুকুরের চাষি একাদুল মিয়া, পুর্বগ্রামের চাষি আপেল মিয়া, রবিন্দ্র বর্মণ বলেন আমরা সকলে দারদেনা, সরকারী ও বেসরকারী ভাবে প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা নিয়ে মাছের চাষ করেছি। বন্যায় আমাদের পুকুরের সব মাছ ভেসে গেছে। আমরা এখন নিঃস্ব হয়ে গেলাম। জয়সিদ্ধী ইউনিয়নের মা মৎস্য খামারের মালিক নুরুল ইসলাম নুরু জানানা তার মাছের খামারের ৩০ লক্ষ টাকার মাছ বন্যায় ভেসে গেছে। আমি এখন পথে নিঃস্ব হয়ে গেছি। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আকন্দ জানান উপজেলায় বন্যায় মাছ চাষের পুকুর ডুবে চাষি ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তালিকা প্রনয়ন করে মন্ত্রাণালয়ে পাঠানো হবে। 


আরও পড়ুন