‘ভ্যাকসিন আনতে যে টাকা লাগবে, তা সংগ্রহ করে রাখা হয়েছে’

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান বলেছেন, করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালের জন্য পৃথিবীর অনেক দেশ আগ্রহ প্রকাশ করেছে। যে কেউ আমাদের দেশে ট্রায়াল করতে পারবে। এতে কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু টিকা চূড়ান্ত অনুমোদন পেলে অবশ্যই বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। দেশে দুই থেকে আড়াই মিলিয়ন ভ্যাকসিন আনতে যে টাকা লাগবে, তা সংগ্রহ করে রাখা হয়েছে।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকালে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব উদ্বোধনের সময় সচিব এ কথা বলেন। বিশ্বের যে কোন দেশ টিকা আবিষ্কার করলে তাৎক্ষনিক যাতে বাংলাদেশ এ টিকা পেতে পারে- সে জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

চিকিৎসকদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়ে সচিব বলেন, সকাল ৮টা থেকে ২টা পর্যন্ত ডিউটি করুন। রোজগারটাকে হালাল করুন। সরকার আপনাদের ১২৩ শতাংশ বেতন বাড়িয়েছে। এরপরও কেউ দায়িত্ব পালন না করলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হাসপাতালের পরিচালক প্রফেসর বাহার উদ্দিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ মাহমুদুল আজিজ, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফজলুল কবীর ও অধ্যক্ষ চিত্তরঞ্জন দেবনাথ, সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব চালু হওয়ায় জেলায় মোট দুটি পিসিআর ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা যাবে। প্রায় তিন মাস আগে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরেকটি পিসিআর ল্যাব চালু করা হয়েছিল। এখন থেকে করোনা রোগীরা দুটি পিসিআর ল্যাবের সেবা পাবেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে পুরো জেলায় এ পর্যন্ত দুই হাজার ৭০১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৬৩০ জনের। সুস্থ হয়েছে দুই হাজার ৫২২ জন।


আরও পড়ুন