দেশের খবর - October 15, 2020

ভালুকায় শিশুকে দোকানে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় সেলিম (৪৫) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পৌনে পাঁচ বছরের এক শিশুকে দোকানে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত সেলিম বর্তমানে ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কডোর মার্কেটের এলাকায় থাকেন। তার পিতা মৃত তাহের মুন্সী।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) রাতের দিকে ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলম তরফদার ও ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমানের সহযোগিতায় শিশুটির বাবা মো. শফিকুল ইসলাম নিজে বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এর আগে রবিবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে দিকে ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়াার্ডের কডোর মার্কেটের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও মামলার বিবরণে জানা যায়, মৃত তাহের মুন্সীর ছেলে সেলিম ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কডোর মার্কেটের এলাকায় বিয়ে করে। তিনি শ্বশুর বাড়িতে ঘর জামাই হয়ে থাকেন। তার বাড়ির ভেতরে একটি মুদির দোকান করেন। গত রবিবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে দিকে বাড়ির পাশে দোকানে মজা কিনতে যায় ভুক্তভোগী ওই শিশু। এক পর্যায়ে সেলিম তাকে খাবারের লোভ দেখিয়ে তার দোকানের ভেতর নিয়ে যায় পরে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে।

পরবর্তীতে শিশুটি ভয় পেয়ে বাড়িতে চলে যায় পরে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। এরপর ওই দিন রাতেই শিশুটি তার মা হাসনা আক্তারের কাছে বিষয়টি খুলে বলেন। পরদিন সোমবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যার দিকে স্থানীয় এলাকার লোকজন জানতে পারলে ভালুকা মডেল থানার পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থল প্রদর্শন করেন। পরে

স্থানীয়রা ও পরিবার শিশুটিকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্মরত চিকিৎসক ওই শিশুটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে তাকে ভর্তি করে। ওই শিশুটি বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা হতদরিদ্র রিক্সাচালক মো. শফিকুল ইসলাম নিজে বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দয়ের করেন।

এ ব্যাপারে ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, এ ঘটনার একটি মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


আরও পড়ুন