ভৈরব - November 5, 2020

ভৈরবে অনুমোদনহীন মেডিকেল সামগ্রী তৈরি, বাবা-ছেলের জেল

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে অনুমোদনহীনভাবে একটি কারখানায় মেডিকেল সামগ্রী তৈরির অভিযোগে বাবা ও ছেলেকে কারাদণ্ডসহ উভয়কে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (৪ নভেম্বর) রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লুবনা ফারজানা এ দণ্ড দেন।

এছাড়া এই ভেজাল কারখানায় উৎপাদিত সামগ্রী বিক্রির দায়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে অবস্থিত বন্যা ফার্মেসীকে ১০ হাজার, সততা ফার্মেসীকে ১২ হাজার ও নিরাময় ফার্মেসীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এর আগে বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত পৌর শহরের চণ্ডিবের মধ্যপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অনুমোদনহীন স্যানিটারি ন্যাপকিন ও উৎপাদনের জন্য মানহীন তুলা, কাপড়, এবডোমিনাল বেল্ট এবং ডেন্টাল সামগ্রী উদ্ধার করে র‌্যাব।

র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের ও স্কোয়াড কমান্ডার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসাইন এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

কোম্পানী কমান্ডার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের জানান, শাহজাহান হাসপাতালের একজন কর্মচারী হয়ে দীর্ঘদিন ধরে তার ছেলেকে দিয়ে অনুমোদনহীন এইসব সামগ্রী তৈরি করে জনস্বাস্থ্যকে হুমকিতে ফেলেছে। এসব মানহীন মেডিকেল সামগ্রী শাহজাহান তার সরকারি প্রভাব খাটিয়ে স্থানীয় ডাক্তারদের দিয়ে প্রেসক্রিপশন করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের ফার্মেসিতে ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে অবাধে বিক্রি করে আর্থিকভাবে লাভবান হয়েছেন।

ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লুবনা ফারজানা জানান, মানহীন এসব স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী সেবা গ্রহীতাদের জীবন ধ্বংস করতে পারে। তারা সরকারি অনুমোদন ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে এসব সামগ্রী তৈরি করে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করছিল। এ কারণে ভোক্তা অধিকার আইনে তাদেরকে জেল-জরিমানা করা হয়েছে।


আরও পড়ুন