দেশের খবর - November 28, 2020

বরগুনায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ

বরগুনায় বন্ধ হয়েছে কিশোরীর বাল্য বিয়ে। শুক্রবার রাতে বরগুনা সদর উপজেলার গৌরীচন্নায় নারায়ণ চন্দ্র শীলের কিশোরী মেয়ের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। রাতে বিয়ের সানাই বাজার কথা ছিলো। আত্মীয় স্বজনকে দেয়া হয়েছিল আমন্ত্রণও। পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিয়েটি বন্ধ করা হয়েছে।

জন্ম নিবন্ধন, টিকার কার্ড, সকল পরীক্ষার সনদপত্রে উল্লেখ রয়েছে কিশোরীর জন্ম তারিখ ২০ সেপ্টেম্বর, ২০০৪। জন্ম তারিখ অনুযায়ী তার বয়স ১৬ বছর ১ মাস। বয়স বাড়িয়ে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন করে তার বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। শুক্রবার সন্ধ্যার পরে বিয়েটি পড়ানোর দিনক্ষণ ঠিক করা হয়েছিল।

বিয়ে বন্ধ করার জন্য পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসন উদ্যোগ নেয়। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুমা আক্তার অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে যাচাই করে দেখেন, কিশোরীর বিয়ের বয়স হয়নি। তিনি বিয়েটি বন্ধ করার জন্য মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেন।

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর বরগুনার উপপরিচালক মেহেরুন নাহার মুন্নী জানিয়েছেন, তারা কিশোরীর পিতার কাছ থেকে মুচলেকা নিয়েছেন। কিশোরীর পিতা মুচলেকায় লিখেছেন, ১৮ বছর হবার আগে মেয়ের বিয়ে দেবেন না।

বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুমা আক্তার জানিয়েছেন, তিনি কিশোরীর বাবাকে সতর্ক করে দিয়েছেন। ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দিলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের সাজা দেয়া হবে।

বরগুনার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন জানিয়েছেন, তারা মেয়ে ও পরিবারকে সতর্ক করেছেন। সেই সাথে পুলিশের এসআই সুদীপ্ত শংকর বিশ্বাস পার্থকে জানানো হয়েছে, কিশোরী মেয়েকে বিয়ে করলে তাকে চাকরি হারাতে হবে।


আরও পড়ুন