কুলিয়ারচর - December 23, 2020

কুলিয়ারচরে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ভিজিডি’র চাল আত্মাসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ছয়সূতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  মীর মো. মিজবাহুল ইসলাম কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব সাক্ষরিত এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়। চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুলিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী।

উপজেলা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ছয়সূতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভিজিডি কর্মসূচির চাল আত্মসাৎ এর উদ্দেশ্যে  ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন জিল্লুর রহমান স্মৃতি সংসদে সংরক্ষণ করে রাখে। এমন খবর পেয়ে  গত বছরের ২৭ মে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট অভিযান পরিচালনা করে ২১ বস্তা চাল জব্দ করে স্মৃতি সংসদটি  শীলগালা করে দেয়। পরবর্তীতে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাউসার আজিজ উপজেলা কৃষি অফিসারকে আহ্বায়ক করে উপজেলা ত্রাণ ও পূণর্বাসন কর্মকর্তা এবং যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাকে সদস্য করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দেয়। ওই তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে ঘটনার সত্যতা পায়। তৎকালিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার তদন্ত প্রতিবেদনটি কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর প্রেরণ করেন।  পরে কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক ওই ইউপি চেয়ারম্যান মীর মো. মিছবাহুল ইসলামের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করেন। এরই প্রেক্ষিতে ছয়সূতী ইউপি চেয়ারম্যান মীর মো. মিছবাহুল ইসলামকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তবে ছয়সূতি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মীর মো. মিজবাহুল ইসলাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি ভিজিডির চাল আত্মসাত করেননি। তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। এছাড়া এখনো সে বরখাস্ত হওয়ার কোন আদেশের চিঠি পায়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত হওয়ায় পরবর্তীতে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব কে পালন করবেন এ বিষয়ে আজকালের মধ্যেই চিঠি আসবে।


আরও পড়ুন