রাত পোহালেই কিশোরগঞ্জ ও কুলিয়ারচর পৌরসভায় ভোট

রাত পোহালেই দ্বিতীয় ধাপে কিশোরগঞ্জ সদর ও কুলিয়ারচর পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সুষ্ঠু পৌর নির্বাচনের লক্ষ্যে সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন-২০২১ উপলক্ষে শুক্রবার জেলা পুলিশের “ব্রিফিং প্যারেড” অনুষ্ঠিত হয়েছে। পুলিশ লাইন্সে অনুষ্ঠেয় প্যারেডে প্রধান অতিথি হিসেবে হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোঃ মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার)।

পোস্টার-ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পুরো শহর। শহরের বিভিন্ন এলাকা,পাড়া-মহল্লার অলিগলিতে মেয়র প্রার্থী,সাধারণ কাউন্সিলর ও মহিলা কাউন্সিলরদের সমর্থকদের পদচারণায় প্রচারনা সম্পন্ন হয়ে এখন ভোট প্রদানের অপেক্ষায় সাধারণ ভোটাররা।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, আগামী ১৬ জানুয়ারি (শনিবার) দ্বিতীয় ধাপে কিশোরগঞ্জ জেলার দুটি পৌরসভায় সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। তারমধ্যে কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় ২৮টি ভোটকেন্দ্রে ৭১ হাজার ৮৪ জন ভোটার ব্যালটে এবং কুলিয়ারচর পৌরসভায় ১২টি ভোটকেন্দ্রে ২৫ হাজার ১৪৩ জন ভোটার প্রথমবারের মত ইভিএমে ভোট দিবেন।

কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে নির্বাচন করছেন ৪ জন প্রার্থী। তারমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র মো. পারভেজ মিয়া,বিএনপি প্রার্থী মো. ইসরাইল মিঞা,ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম,ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) প্রার্থী মো. স্বপন মিয়া দ্বিতীয় ধাপে কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এছাড়া, সাধারণ কাউন্সিলর ৫৯ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হিসেবে ২২ জন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন।

অন্যদিকে, কুলিয়ারচর পৌরসভায় মেয়র পদে নির্বাচন করছেন ২ জন প্রার্থী। দুই মেয়র প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ হাসান সারওয়ার মহসিন এবং বিএনপি’র মনোনীত মেয়র প্রার্থী কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক পৌর মেয়র নূরুল মিল্লাত। এছাড়া, সাধারণ কাউন্সিলর ৪২জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হিসেবে ১১ জন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন।

নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ আশ্রাফুল আলম জানান,সুষ্ঠু পৌর নির্বাচনের লক্ষ্যে সকল প্রকার প্রস্তুতি হাতে নেওয়া হয়েছে। আশাকরি আগামী ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপে জেলার দুটি পৌরসভায় সকল ভোটারদের উপস্থিতিতে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।


আরও পড়ুন