কিশোরগঞ্জে ছাত্রকে বলাৎকার, মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেফতার

কিশোরগঞ্জে মাদ্রাসাছাত্র বলাৎকারের মামলার প্রধান আসামী বেলাল হোসেন ওরফে বিল্লালকে (২৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। শুক্রবার ভোরে ময়মনসিংহ জেলার গৌরিপুর উপজেলার বিশ্বনাথপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিল্লাল ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার পাড়া পাঁচাশি গ্রামের মুজিবুর রহমানের ছেলে।

র‌্যাব সূত্র জানায়, বলাৎকারের ঘটনায় কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা হলে র‌্যাব ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালায়। শুক্রবার ভোরে র‌্যাবের একটি দল গৌরিপুরের বিশ্বনাথপুর থেকে মামলার মূল আসামী বিল্লালকে গ্রেফতার করে।

র‌্যাব-১৪ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লেফটেনেন্ট এম. শোভন খান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। পরে তাকে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়।

উল্লেখ্য, কিশোরগঞ্জ শহরের নগুয়া শ্যামলী সড়কস্থ ৭১৫ জামিয়াতুস সুন্নাহ মাদ্রাসার তৃতীয় তলার টয়লেটে মাদ্রাসার আবাসিক এক ছাত্রকে গত ১৫ আগস্ট শিক্ষক হাফেজ মাওলানা বেলাল হোসেন বিল্লাল ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক বলাৎকার করেন। পরে একইভাবে গত ২৭ আগস্ট পুনরায় বলাৎকার করেন। এ অবস্থায় ছাত্র বাসায় গিয়ে ঘটনা জানালে ছাত্রের পিতা কয়েকজন আত্মীয়কে সাথে নিয়ে মাদ্রাসায় যান। তারা মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ মাওলানা মুফতি হোসাইন মো. নাঈমকে ঘটনা জানালে পরিচালক বিল্লালকে ডেকে এনে জিজ্ঞাসা করলে তিনি ঘটনা স্বীকার করেন। পরে পরিচালক নাঈমের জিম্মায় বিল্লালকে রেখে তারা বাসায় চলে যান। কিন্তু পরিচালক পরে বিল্লালকে ছেড়ে দিলে তিনি পালিয়ে যান।

এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী ছাত্রের পিতা বাদী হয়ে গত ৩০ আগস্ট কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় শিক্ষক বিল্লাল ও পরিচালক নাঈমকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।


আরও পড়ুন