প্রচ্ছদ - শিক্ষা - September 19, 2021

এসএসসি শুরু ১০ নভেম্বর ও এইচএসসি ১৫ ডিসেম্বর

করোনা সংক্রমণের কারণে এ বছরের স্থগিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হতে পারে আগামী ১০ নভেম্বর। এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর সম্ভাবনা ১৫ ডিসেম্বর থেকে। এসব পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ছাপানের কাজ শেষ হয়েছে এরই মধ্যে। তবে জেএসসি ও সমমানের পরীক্ষার কোনো প্রস্তুতি নেই শিক্ষা বোর্ডের। আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, চলতি বছর এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা হবে শুধু গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে। সেই সঙ্গে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সময় ও নম্বর কমিয়ে নেওয়া হবে এসব পরীক্ষা। আবশ্যিক কিংবা চতুর্থ বিষয়ের কোনো পরীক্ষা এবার হচ্ছে না। বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশে জেএসসি এবং এসএসসি পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে ‘বিষয় ম্যাপিং’ করে দেওয়া হবে আবশ্যিক ও চতুর্থ বিষয়ের নম্বর। উচ্চশিক্ষায় ভর্তিতে যাতে নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সর্বশেষ সভায় বিভিন্ন বোর্ড চেয়ারম্যান এ বছরের এসসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করেন। রুটিন তৈরির বিষয়ে মতামত তুলে ধরেন। তাদের মতামতের ভিত্তিতেই ১০ নভেম্বর থেকে এসএসসি পরীক্ষা শুরুর সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যে ১০ থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত বিষয়ভিত্তিক পরীক্ষা নেওয়ার খসড়া রুটিনও তৈরি হয়। একইভাবে এইচএসসি পরীক্ষা ১৫ ডিসেম্বর শুরু হয়ে ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার লক্ষ্য রেখে তৈরি করা খসড়া রুটিন। এটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে শিগগিরই। মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে চূড়ান্ত হবে পরীক্ষার সেই রুটিন, যা প্রকাশ করা হতে পারে পরীক্ষা শুরুর ১৫ দিন আগে।

এ বিষয়ে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, ‘এ বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি চলছে বোর্ডগুলোয়। পরীক্ষার রুটিন তৈরির কাজও চলছে। ইতোমধ্যে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ছাপানোর কাজও শেষ। সেগুলো ট্রেজারিতে চলে গেছে। এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ছাপানোরও বেশিরভাগ কাজ শেষ হয়েছে। বাকি কাজ শেষ করতে বেশি সময় লাগবে না।’

জেএসসি পরীক্ষার বিষয়ে অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, ‘এটি পাবলিক পরীক্ষা নয়। এ পরীক্ষার আয়োজন করা হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি চিঠির আদেশে। আমরা এখনো পরীক্ষার কিছুই জানি না।’ তিনি বলেন, ‘জেএসসির প্রস্তুতি বোর্ড নিজ থেকে নিতে পারে না। তবে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়া এবং ফল প্রকাশÑ এসব বোর্ডের নিজস্ব দায়িত্ব বলে সিদ্ধান্তও নিজে নিজে নিতে পারে।’

অন্য একটি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অবশ্য বলেন, ‘এসএসসি ১০ নভেম্বর এবং এইচএসসি পরীক্ষা ১৫ ডিসেম্বর শুরুর একটা নীতিগত সিদ্ধান্ত বোর্ডগুলো নিয়েছে। সে অনুযায়ী রুটিনের খসড়াও তৈরি করা হয়েছে। সেটি শিক্ষা মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলেই চূড়ান্ত রুটিন প্রকাশ করা হবে। এ ক্ষেত্রে দু-একদিন আগে পরেও পরীক্ষা শুরু হতে পারে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এ বছর আবশ্যিক বিষয়গুলোর পরীক্ষা হবে না। নির্বাচনী বিষয়ে তিনটি করে পরীক্ষা নেওয়া হবে। ফলে পরীক্ষার সময় বেশিদিন লাগবে না।’

করোনা সংক্রমণ না কমায় চলতি বছরের এসএসসি এবং এইচএসসিতে বিভাগভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা আগেই দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তিনি আরও জানিয়েছিলেন, করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে এলে চলতি বছরের নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হতে পারে। আর ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে হতে পারে এইচএসসি পরীক্ষা। প্রতিবছর অবশ্য ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি এবং এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়। করোনার কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ছিল ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সংক্রমণ না কমায় ওই বছরের এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরে বিশেষ ব্যবস্থায় এর ফল প্রকাশ করা হয়।


আরও পড়ুন