ইকবাল ৭ দিনের রিমান্ডে

ধর্ম অবমাননা মামলায় ইকবাল হোসেনসহ ৪ জনের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ শনিবার দুপুরে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিথিলা জাহান মিতা এ আদেশ দেন।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম তানভীর আহমেদ এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মফিজুল ইসলাম ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেছিলেন।

শুনানি শেষে আদালত ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। বাকি তিনজন হলেন, ইকরাম, ফয়সাল ও হাফিজ।

গত ২০ অক্টোবর পুলিশ জানায়, কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রেখে গদা কাঁধে নিয়ে হেঁটে যাওয়া যুবকের নাম ইকবাল হোসেন। কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক জানান, ভিডিও ফুটেজ দেখে ‍যিনি কোরআন শরীফ রেখেছিলেন তাকে শনাক্ত করেছে পুলিশ।

পুলিশ আরও জানায়, গত ১৩ অক্টোবর দুর্গাপূজার অষ্টমীর দিনে কুমিল্লার নানুয়ার দিঘির পাড়ে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার কথা জানিয়ে ৯৯৯ কল করেন স্থানীয় ইকরাম হোসেন। ফোন পাওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে সাদা পোশাকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল আজীম। ওই ঘটনায় সরাসরি লাইভ করেন স্থানীয় ফয়েজ আহমেদ। তিনি প্রবাসে ছিলেন এখন মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী। ওই সময় ওসি ফোনে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে ঘটনা সম্পর্কে জানাতে থাকলে ফয়েজ ওসির পরিচয় লাইভে দেন এবং কোরআন শরীফ অবমাননার কথা বলে প্রতিবাদ জানানোর কথা বলেন। এই ভিডিও বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার হয়। গতকাল রাতে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ইকবাল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।


আরও পড়ুন