করিমগঞ্জ - November 1, 2021

করিমগঞ্জে প্রার্থীদের সাথে উপজেলা প্রশাসনের মতবিনিময়

করিমগঞ্জ উপজেলায় ২য় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ অনুষ্ঠানের লক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের অংশগ্রহনে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১ অক্টোবর, সোমবার বিকাল ৩টায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসারবৃন্দের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হল রুমে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত মহিলা ও সাধারণ পদের সকল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীগণ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদ আহম্মেদ এর সঞ্চালণায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তসলিমা নূর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে নির্বাচনী আচরণবিধি ও আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক বিস্তর আলোচনা করেন, কিশোরগঞ্জ জেলা সহকারি পুলিশ সুপার (করিমগঞ্জ সার্কেল) মোঃ ইফতেখারুজ্জামান, সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে হাফসা নাদিয়া, করিমগঞ্জ থানা পুলিশ পরিদর্শক শামছুল আলম সিদ্দিকী ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তাবৃন্ধ।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সতর্ক করে তসলিমা নূর হোসেন বলেন সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১১ নভেম্বর নির্ধারিত তারিখেই উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ৯৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

এখন পর্যন্ত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলার কোথাও বড় কোন সহিংসতার খবর না পাওয়া গেলেও ছোটখাটো কিছু বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা লংঘন করায় একজন প্রার্থীকে জরিমানাও করেছে প্রশাসন।

উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর পক্ষ থেকে স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সবধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে সকল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের জানানো হয়।

মতবিনিময় কালে সহকারি পুলিশ সুপার ইফতেখারুজ্জামান ও পুলিশ পরিদর্শক শামছুল আলম সিদ্দিকী জানান, ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় রয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। কোথাও বিশৃঙ্খলার খবর পেলে আমরা সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে ছুটে যাচ্ছি।

করিমগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারের কোন সুযোগ আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তসলিমা নূর হোসেন বলেন, নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে অথবা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে কোন প্রার্থী কিংবা সাধারণ ভোটারদের হেনস্তা করার কোন সুযোগ নেই। এধরনের কোন অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বক্তারা উপজেলার সকল ইউনিয়নে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকদের প্রতি শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে জোর আহ্বান জানান। একই সাথে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা লংঘন করলে দল-মত নির্বিশেষে কাউকেই ছাড় দেয়া হবেনা মর্মেও সতর্ক করেন।


আরও পড়ুন