কুড়িগ্রামে নৈশকোচের ধাক্কায় নিহত ৪

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে নৈশকোচের ধাক্কায় একই পরিবারের তিনজনসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় একজন গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভূরুঙ্গামারী-কুড়িগ্রাম সড়কের রায়গঞ্জ আলেপের তেপথি এলাকায় পাম্পের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নাগেশ্বরী উপজেলার রায়গঞ্জ ইউনিয়নের পশ্চিম সাপখাওয়া এলাকার অটোচালক জলিল সরকার ও পশ্চিম রায়গঞ্জ এলাকার শহিদুল ইসলাম ও তার মেয়ে শিশু সুমাইয়া ও শহিদুল ইসলামের মা সুফিয়া বেগম। হাসপাতালে আশঙ্কাজনক শহিদুল ইসলালের স্ত্রী শাহানাজ বেগম। এ ঘটনায় কোচ ও চালককে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা সড়কে গাছের গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীউল হাসান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর আহমেদ মাছুম ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

স্থানীয়রা জানান, সড়কের কাজ করতে সড়কের দুপাশে মাটি উচু করে রেখেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এর কারণে ভূরুঙ্গামারী থেকে আসা রিজভী পরিবহন নামের নৈশকোচ ও নাগেশ্বরীর দিক থেকে যাওয়া অটোরিকশাটি মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় দুজন। আহতদের উদ্ধার করে নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে পথেই দুজনের মৃত্যু হয়।

ওসি নবীউল হাসান বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। চালককে আটকের পর বাসটি জব্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও পড়ুন