ভৈরব - November 25, 2021

ভৈরবে প্রতিটি ইউনিয়নে একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী

সোহানুর রহমান সোহান, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : ভৈরবে ইউপি নির্বাচনে সাতটি ইউনিয়নে ৪৬ জন চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ৭৮ ও সাধারণ মেম্বার ২৪৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

গতকাল( ২৫ নভেম্বর) বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল। তার মাঝে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও মনোনয়ন পত্র দাখিল করলেন যারা ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ গত সপ্তাহে ভৈরবের সাতটি ইউনিয়নে ইউনিয়ন কমিটির ডেলিগেট ভোটের আয়োজন করে। এতে আগানগর, সাদেকপুর, গজারিয়া, শিমুলকান্দি ও শিবপুর এই পাঁচটি ইউনিয়নে ডেলিগেট ভোটে পাঁচ প্রার্থী তৃতীয় হয়। তৃতীয় হওয়া প্রার্থীরা আওয়ামী লীগের নৌকা মনোনয়ন পেয়েছেন এবং ভোটে যারা প্রথম হয়েছিলেন তাদের একজনকেও মনোনয়ন দেয়া হয়নি।

এনিয়ে দলের তৃণমূল নেতা কর্মীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ ও মন কষ্টের সৃষ্টি হয়েছে। এই কারণে এবারের ইউপি নির্বাচনে প্রতিটি ইউনিয়নে একাধিক বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী গতকাল মনোনয়নপত্র দাখিল করে। আগামী ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে ভৈরবের ৭ টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

চেয়ারম্যান পদে শিমুলকান্দিতে বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সফল সভাপতি দূর দিনের কান্ডারী আবদুল আজিজ,সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বাবুল মিয়া, আক্তার হোসেন ও শামীম মিয়া, শিবপুর ইউনিয়নে অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন দ্বীন ইসলাম, মাসুদ রানা, মোঃ হাসান, সাহিদ মিয়া, মোঃ সালাউদ্দিন ও রাসেল রহমান।

কালিকাপ্রসাদে ভৈরব উপজেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান মরহুম হাজী কালু মিয়ার কনিষ্ঠ ছেলে মোঃ লিটন মিয়া, মরহুম হাজী কালু মিয়ার দৌহিত্র সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল কবির, আবদুল্লাহ আল মামুন, হারুন উর রশিদ, জসীম উদ্দিন, কামাল খাঁন।

আগানগরে বর্তমান সফল চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের দূর দিন দূর সময়ের কান্ডারী মমতাজ মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম হীরা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম মিয়া মুসলিম মিয়া , লায়েছ মিয়া,তাদির ইসলাম, আবুল বাশার, খাইরুল ইসলাম ও তাজুল ইসলাম।

শ্রীনগরে মোশারফ হোসেন হেলিম, হারুন উর রশিদ, কফিল উদ্দিন ও হেলাল উদ্দিন।

গজারিয়াতে সাবেক ইউপি ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন কাউছার,নবী হোসেন সেন্টু, জাহিদুল ইসলাম রাজু, শাহরিয়ার কবির , বশীর আলম, কাজী নুরুল আলম, নুরুল আলম সোহেল, সায়েম মিয়া, কাইসার আহমেদ ভূইঁয়া ও আমিনুল ইসলাম।

সাদেকপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফাজ্জল হোসেন।

এছাড়াও সাতটি ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার পদে ৭৮ জন ও সাধারণ মেম্বার পদে ২৪৩ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র গতকাল বৃহস্পতিবার দাখিল করেন। এসকল ইউনিয়নে বিএনপি, জাতীয় পার্টি, চরমোনাই দলের সমর্থকসহ আওয়ামী লীগের লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে একাধিক বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলের পর শিমূলকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সফল সভাপতি ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল আজিজ ভৈরব প্রতিনিধিকে জানান, আমি গত এক সপ্তাহ আগে আমি ডেলিগেটের ভোটে ২০ ভোট পেয়ে প্রথম হয়েও আমি নৌকার টিকেট পেলাম না। পেয়েছে ডেলিগেটের ১৩ভোট পেয়ে তৃতীয় হওয়া মিজানুর রহমান রিপন, কিন্তু আমার শিমূলকান্দি ইউনিয়ন বাসী আমার পাশে আছে তাই আমি জনগণের স্বার্থে আগামী ২৬ ডিসেম্বরে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসাবে মাঠে থাকবো এবং শিমূলকান্দি ইউনিয়ন বাসী আমাকে যে রায় দিবে তা আমি মেনে নিবো।

এ ছাড়াও আগানগর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা মমতাজ মিয়ার ছেলে ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ শফিকুল ইসলাম হীরা বলেন, আমি ইউনিয়ন কমিটির ডেলিগেটের ভোটে প্রথম হয়েছি, এবং দল থেকে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার আগের দিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকে বেশ কয়টি আইডি থেকে দেখি আমি নৌকার টিকেট পেয়েছি কিন্তু সকালে ঘুম থেকে উঠে শুনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন বোর্ডের কাছে নাম পাঠানো হুমায়ূন কবির নৌকার টিকেট পেয়েছেন। যা রীতিমত অভাগ করার কান্ড এবং আমি নিজেও অভাগ।

কিন্তু আমার বাবা মমতাজ মিয়া দূর দিন দূর সময়ের থেকে আজ ৬৫ বছর যাবৎ আওয়ামী লীগ করছেন আমাদের রক্তের সাথে মিশে আছে আওয়ামী লীগের রাজনীতি কিন্তু আমি নৌকার টিকেট পেলাম না। তাই আমার বাবার অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করার জন্য আমি সকল ইউনিয়ন বাসীকে থেকে সাথে নিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছি ইনশা আল্লাহ।


আরও পড়ুন