খেলার খবর - April 13, 2022

ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক কোহলির, শঙ্কায় আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার

আলমের খান : সময়ের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার মনে করা হয় কোহলিকে, কারো কারো মতে ক্রিকেট ইতিহাসেরই। রানমেশিন খ্যাত এ ক্রিকেটার সম্ভবত নিজের জীবনের সবচেয়ে বাজে সময় পার করছেন। লঙ্কানদের বিপক্ষে নিজের শততম ম্যাচে ৪৫ রান করেন কোহলি। অনেকদিন পর কোহলিকে সে আগের স্বরূপে দেখা গিয়েছিল। কিন্তু এরপর আবারও ব্যর্থ কোহলি।

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে করেন ৪৮ বলে ২৩ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে কোহলির ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র ১৬ রান। বেশ কয়েকদিন যাবৎ ধরেই প্রতিটি রানের জন্য কোহলির সংগ্রাম যেন নিত্যদিনের ব্যাপার। একসময় সেঞ্চুরির পর সেঞ্চুরি করা সেই কোহলির শেষ সেঞ্চুরি আজ থেকে তিন বছর আগে ২০১৯ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে এসেছিল। নিজের জীবনে এর আগেও খারাপ সময় পার করেছেন কোহলি। তবে কোহলির এত করুণ অবস্থা কখনই ছিল না।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বেশ আগেই ক্যাপ্টেন্সি ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে ওয়ানডে অধিনায়কত্ব থেকেও সরিয়ে দেওয়া হয় কোহলিকে। সবশেষে টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকেও সরে দাঁড়ান এই ব্যাটসম্যান। মনে করা হয় টেস্ট অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে কোহলিকে। টিম ম্যানেজমেন্টের ভরসা যে দিন দিন কোহলির উপর কমছে তা এখন স্পষ্ট।

২০১৪-১৫ সালে বেশ খারাপ সময় পার করছিলেন কোহলি তবে তখন টিম ম্যানেজমেন্ট এবং বোর্ডের পূর্ণ সমর্থন পেয়েছিলেন এই ব্যাটার। তবে এখন‌ কোহলি যেনো একলা পথিক কারো কোনো সমর্থন কিংবা আস্থা নেই তার উপর। ফলে এখন ঘুরে দাঁড়ানোটা বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে কোহলির।

একটি সাক্ষাৎকারে সুনীল গাভাস্কার কোহলির অধিনায়কত্ব যাওয়ার প্রসঙ্গে বলেন”কোনো কারণে একটি ক্রিকেটারের অধিনায়কত্ব যদি চলে যায় তাহলে এতে তার মন খারাপ করে থাকলে হবে না। এবং এটি তার পারফরমেন্সের উপর যাতে কোনোভাবে প্রভাব না ফেলে। কারণ অধিনায়কত্ব হারানোর পর পারফরম্যান্স খারাপ হলে পরবর্তীতে দল থেকে বাদ পড়তে হবে সেই ক্রিকেটারের”।

সরাসরি কোহলির নাম না বললেও, ইঙ্গিতে কোহলির বর্তমান অবস্থা বুঝিয়ে দিয়েছেন গাভাস্কার। তার মতে কোহলির পারফরম্যান্স এখন খারাপ হলে হয়তো জাতীয় দল থেকেই ছিটকে পড়তে পারেন এই কিংবদন্তি। অবশ্য কোহলি জাতীয় দল থেকে বাদ পড়লেও হয়তো খুব বেশি অবাক হওয়ার সুযোগ নেই। বর্তমানে ভারতীয় দলের কাছে যে পরিমাণ বিকল্প রয়েছে তাতে যেকোনো সময় যে কেউ বাদ পড়তে পারে। ফলে নিজের অধিনায়কত্ব হারানোর দুঃখ ভুলে খুব দ্রুতই ফিরে আসতে হবে কোহলির। তা না হলে বেশ বড়সড় লজ্জা অপেক্ষা করছে এই কিংবদন্তির জন্য।


আরও পড়ুন