এমবাপ্পেকে ধরে রাখতে পিএসজির ‘নতুন চাল’, আশাহত রিয়াল

গত সপ্তাহে কিলিয়ান এমবাপ্পের ঘোষণা দেন, ভবিষ্যতের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন এবং এ মাসেই তা জানিয়ে দেবেন। এরপরই গুঞ্জন ওঠে পিএসজি ছেড়ে রিয়ার মাদ্রিদে যাচ্ছেন এ ফরাসি ফরোয়ার্ড।

কিন্তু এরইমধ্যে পর্দার আড়ালে জমে উঠেছে আরেক নাটক। এমবাপ্পেকে ধরে রাখার মরিয়া চেষ্টায় শেষ মুহূর্তে পিএসজি দারুণ এক চাল চেলেছে। এতে এমবাপ্পের রিয়াল মাদ্রিদে যোগদানের খবর অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে!

অবিশ্বাস্য অঙ্কের বেতন, বোনাস দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে পিএসজি। পাশাপাশি ক্লাবের ক্রীড়া প্রকল্পের ব্যাপারে যে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার সর্বময় ক্ষমতা এমবাপ্পেকে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তারা।

এতেই শেষ নয়; চাইলে কোচ বদলে ফেলতে পারবেন এমবাপ্পে। এমনকি খেলোয়াড় পরিবর্তনের ক্ষমতাও থাকবে তার হাতে।

ফরাসি মিডিয়ার খবর, চুক্তি নবায়নে রাজি হলে পিএসজির মালিক হয়ে যাবেন এমবাপ্পে! এমন অভাবনীয় প্রস্তাব পাওয়ার পর ফরাসি ফরোয়ার্ড নাকি রিয়ালের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন। স্প্যানিশ ক্লাবটি এমবাপ্পের বিষয়ে এখন আশা ছেড়ে দিয়েছেন।

এমবাপ্পের পিএসজি সতীর্থ মার্কো ভেরাত্তি বলেছিলেন, ফরাসি ফরোয়ার্ডকে যে কোনো মূল্যে চায় রিয়াল মাদ্রিদ। মাদ্রিদের ক্লাবটির রুমে এমবাপ্পেকে নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই।

তবে সেই আগ্রহে এবার পানি ঢাললেন ক্লাবটির সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। দলকে জানালেন, এমবাপ্পে যোগ দিচ্ছেন না রিয়াল মাদ্রিদে।

স্প্যানিশ ক্রীড়া সাংবাদিক গিয়েম বালাগ জানাচ্ছেন, পেরেজ নিজেদের ড্রেসিং রুমে জানিয়ে দিয়েছেন, পিএসজির শেষ প্রস্তাবটাই রিয়ালে যোগ দেওয়ার পথ আটকে দিয়েছে এমবাপ্পের। তিনি মতটা বদলেছেন হঠাৎ করেই।

স্প্যানিশ মিডিয়ার একাংশ অবশ্য মনে করছে, রিয়ালের সঙ্গে সমঝোতা হয়ে যাওয়ায় দলবদলের আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে পিএসজিকে শান্ত রাখতে এই কৌশল বেছে নিয়েছেন এমবাপ্পে।

এমবাপ্পের মা ও এজেন্ট ফায়জা আল আমারি অবশ্য সিদ্ধান্তটা ছেলের ওপরই দিয়ে রেখেছেন।

তিনি জানিয়েছিলেন, ‘এমবাপ্পের ভবিষ্যৎ নিয়ে আর কোনো নতুন বৈঠকে বসব না আমরা। সব বৈঠক শেষ হয়ে গেছে। এখন রিয়াল মাদ্রিদ আর পিএসজি দুই দলের সঙ্গেই আমাদের সম্মতি আছে। সব আলোচনা শেষ হয়ে গিয়েছে, কারণ এখন কিলিয়ান নির্ধারণ করবে কোন দলটা সে বেছে নেবে। দুটো প্রস্তাবই প্রায় কাছাকাছি, বড় কোনো পার্থক্য নেই। এখন আমরা কিলিয়ানের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।’


আরও পড়ুন