করিমগঞ্জে হোটেল বয়ের খন্ডিত লাশ উদ্ধার

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে মোঃ মতিউর রহমান (৫৫) নামে এক শ্রমিকের খন্ডিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মতিউর রহমান উপজেলার গুণধর ইউনিয়নের সুলতান নগর গ্রামের মৃত তাহের উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার (২৭মে) বিকেলে উপজেলার গুণধর ইউনিয়নের সুলতান নগর গ্রামের আশরাফ উদ্দিন কবরস্থান থেকে নিহতের খন্ডিত দেহ উদ্ধার করা হয়। এলাকাবাসী নিহতের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ শুক্রবার দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর মেডিকেলের মর্গে পাঠায়।

এলাকাবাসী জানায়, ঘটনার দিন সকালে কবরস্থান থেকে লাশের গন্ধ পঁচা আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী নিহতের খন্ডিত লাশ দেখতে পায়। পরে নিহতের সন্তান রমজান মিয়া মৃতদেহ দেখে এটি কার পিতার লাশ বলে সনাক্ত করে। এলাকাবাসী আরও জানান নিহতের প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ায় গত ২০ মে উপজেলার গুনধর ইউনিয়নের গাংগাটিয়া গ্রামের এক মহিলাকে দ্বিতীয় বিবাহ করে। বিবাহের পর থেকে দ্বিতীয় স্ত্রীর বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন তিনি। এদিকে নিহত মতিউর রহমানের প্রথম পক্ষের চার ছেলে সন্তান রয়েছে। প্রথম পক্ষের ছেলেদের সাথে মিলমিশ না থাকায় দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথেই থাকতেন তিনি।

জানা যায়, নিহত মতিউর রহমান উপজেলার গুণধর ইউনিয়নের মরিচখালি বাজারে হারেছে মিয়ার হোটেলে হোটেল বয়ের কাজ করতেন।

হারেছ মিয়া জানান, গত ২৪ মে প্রতিদিনের মতো দোকানের কাজ শেষে রাতে বাড়ি চলে যায়। তারপর থেকে সে দোকানে আসেনি।

করিমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শামসছুল আলম সিদ্দিকী জানান, এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তিনি আরো জানান, ইতিমধ্যে এ ঘটনার অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উদঘাটন করতে পেরেছি। ঘটনায় জড়িতদেৱ যত দ্রুত সম্ভব শনাক্ত করে বিচারের আওতায় আনা হবে।


আরও পড়ুন