ডেঙ্গু বিস্তার রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালত

ডেঙ্গু বিস্তার রোধে বুধবার (১৫ জুন) থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। ১০টি অঞ্চলে এই কার্যক্রম চলবে চার মাস। মঙ্গলবার (১৪ জুন) বিকেলে নগরের ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে মশক নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত পাক্ষিক পর্যালোচনা সভায় এ ঘোষণা দেন ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

মেয়র তাপস বলেন, ঢাকার বাসিন্দাদের একটি বড় অংশ ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতন হলেও অনেকেই না। তাদের বিরুদ্ধে চলবে ডেঙ্গু প্রতিরোধ অভিযান। ঢাকাবাসীর মধ্যে একটি বড় অংশ নিজ থেকেই সচেতন। তারা এডিস মশার প্রজননস্থল ধ্বংসে স্বপ্রণোদিতভাবেই কাজ করে থাকেন। কিন্তু একটি উল্লেখযোগ্য অংশ এ ব্যাপারে সচেতন নয়। তাদেরকে আমরা যতই উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করি না কেন, তারা দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করেন না। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের কঠোর হতে হবে। সে জন্যই ডেঙ্গু রোগীর বিস্তার রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা শুরু করব। ঢাকাবাসীকে ডেঙ্গুর প্রকোপ থেকে রক্ষা করতে চার মাস ধরে এই অভিযান পরিচালনা করা হবে।

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণই এখন মূখ্য কাজ উল্লেখ করে মেয়র বলেন, ‘মশক নিয়ন্ত্রণে আমাদের পূর্ণ সক্ষমতা ব্যবহার করতে হবে। অলি-গলি থেকে শুরু করে অপরিচর্যিত ছাদবাগানেও আমাদের নজর দিতে হবে। অপরিচর্যিত ছাদবাগানে কোনরকম নমনীয়তা প্রদর্শন করা যাবে না। তাছাড়া কোনো স্থাপনায় মশার প্রজননস্থল থাকার সুনির্দিষ্ট তথ্য থাকলে যে কোনো উপায়ে সেখানে প্রবেশের অনুমতি নিতে হবে এবং প্রজননস্থল ধ্বংস করতে হবে।’

পর্যালোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, সচিব আকরামুজ্জামান, আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাবৃন্দ, ভারপ্রাপ্ত প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফজলে শামসুল কবির, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও পড়ুন