দেশের খবর - May 14, 2015

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশি খুন,মালামাল ও নগদ অর্থ লুটপাট

murder

বুধবার দেশটির মাছুমা সিটির এক সুপার মার্কেটে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে নিহত হন ওমর ফারুক স্বপন (৪৫)।
এরপর হামলাকারীরা স্বপনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল ও নগদ অর্থ লুটে নেয়।

নিহত স্বপন নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার দক্ষিণ কাদরা গ্রামের চানু মিয়ার ছেলে। তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা।

সেনবাগ পৌরসভার মেয়র আবু জাফর টিপু ও স্বপনের পরিবারের সদস্যরা খবরটির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

স্বপনের ছোট ভাই মো. রানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ওমর ফারুক স্বপন চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে সবার বড়। ২০১২ সালে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকা যান।

এরপর সেখানে মাছুমা সিটির একটি সুপার মার্কেটে তিনি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিলেন। যাওয়ার পর তিনি আর দেশে আসেননি।

স্থানীয় বাংলাদেশিদের বরাত দিয়ে রানা জানান, বুধবার দুপুরে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অবস্থান করছিলেন স্বপন। হঠাৎ স্থানীয় কয়েকজন সন্ত্রাসী সেখানে গিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে।

দাবিমতো চাঁদা না পেয়ে তারা স্বপনকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি করে। এতে তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলিবিদ্ধ হয়।

এরপর সন্ত্রাসীরা তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল ও নগদ অর্থ লুট করে চলে গেলে স্থানীয় কয়েকজন বাংলাদেশি তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্বপনের মরদেহ দ্রুত দেশে আনার ব্যাপারে তারা সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।

স্বপনের মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বার বার মুর্চ্ছা যাচ্ছেন স্বপনের মা নূরজাহান ও স্ত্রী ফাতেমা আক্তার স্বপ্না।

খবর শুনে সেনবাগ পৌর মেয়র আবু জাফর টিপু তাদের বাড়ি গিয়ে স্বজনদের সান্ত্বনা দেন।

তিনি বলেন, স্বপনদের পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো নয়। এছাড়া এ দুর্ঘটনায় তারা বিহ্বল হয়ে পড়েছেন।

দ্রুত মরদেহ দেশে আনার ব্যাপারে তিনি সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।


আরও পড়ুন