কুলিয়ারচর - June 26, 2018

কুলিয়ারচরে ২ যুবককে হত্যা মামলার আসামী করে চার্জসীট দেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি, কুলিয়ারচর (কিশোরগঞ্জ) ।। ডিবি পুলিশের চাহিদা মত উৎকোচ দিতে না পারায় কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার চরকামালপুর গ্রামের সাকিল মাহমুদ অনিক (২৪) ও মোঃ শামীম (২৮) নামে দুই ব্যবসায়ীকে একটি হত্যা মামলার আসামী করে চার্জসীট দেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে এলাকাবাসী। ২৬ জুন মঙ্গলবার সকালে উপজেলার চরকামালপুর গ্রামে হযরত শাহ্ সূফী মৌঃ আবদুল হক সাহেবের মাজার প্রাঙ্গনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অনিকের পিতা অবসর প্রাপ্ত বিজিবি সদস্য মোঃ সালাহউদ্দিন ভূঞা ওরফে কামাল তার লিখিত অভিযোগপত্র পাঠ করে সাংবাদিকদের বলেন, তার ছেলে সাকিল মাহমুদ অনিক স্থানীয় ডুমরাকান্দা বাজারে অনিক মোবাইল জোন নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্টান পরিচালনা করে আসছে। তিনি তার অভিযোগ লিপিতে উল্লেখ করেন, চরকামালপুর গ্রামের মোঃ আমিনুল হকের
পুত্র পেশাদার দুর্ধর্ষ চোর সোহেল (২৭) গত ২০১৬ সালের ১৯ জুলাই কামালের বাড়িতে চুরি করার অভিযোগে কামালের ছেলে অনিক বাদী হয়ে কুলিয়ারচর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। নরসিংদী জেলার বেলাব থানার একটি হত্যা মামলায় ডিবি পুলিশ কর্তৃক সন্দেহভাজন সোহেল সহ ৫ জনকে আটক করে।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় শত্রুতা করে সোহেল সহ তার সহযোগীরা অনিক ও শামীমের নাম বলে ওই হত্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়। পরে এই ঘটনাকে পুজি করে চরকামালপুর গ্রামের মৃত রইছ উদ্দিনের পুত্র নরসিংদী ডিবি অফিসের সোর্স মোঃ সবুজ মিয়া (৪৮) ডিবি পুলিশের পক্ষ হয়ে অনিক ও শামীমের পরিবারের নিকট পৃথক পৃথক ভাবে ১ লক্ষ টাকা করে উৎকোচ (ঘুষ) দাবি করে বলে ১ লক্ষ টাকা করে দিলে ওই মামলায় তাদেরকে আসামী করা হবেনা। কামাল আরো উল্লেখ করেন, সবুজের কথায় রাজী না হওয়ায় ডিবি পুলিশ অনিক ও শামীমের পরিবারের নিকট থেকে অর্থ আদায়ে ব্যার্থ হয়ে কুলিয়ারচর উপজেলার ফরিদপুর গ্রামের মোঃ জিল্লুর রহমান নামক এক অটো চালক খুনের ঘটনায় বেলাব থানার মামলা নং-০৮(০১)১৮ এর তদন্তকারী কর্মকর্তা নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা শাখার এস আই (নিঃ) রুপন কুমার সরকার ওই মামলার অজ্ঞাতনামা আসামীদের মধ্যে অনিক ও শামীমের নাম অন্তর্ভূক্ত করে মাননীয় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

অপর দিকে পোল্ট্রি ব্যবসায়ী শামীমের স্ত্রী ৩ কন্যা সন্তানের জননী মোছাঃ মনোয়ারা বেগম (২৫) সংবাদ সম্মেলনে কামালের লিখিত অভিযোগের সাথে একমত প্রকাশ করে অভিযোগ করে বলেন, সবুজ ডিবি পুলিশের পক্ষ হয়ে তার নিকট ১ লক্ষ টাকা উৎকোচ (ঘুষ) দাবি করে। ঘুষ দিতে না পারায় ওই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলার চার্জসীটে শামীমের নাম অন্তর্ভুক্ত করে মাননীয় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। তারা উক্ত মামলা পূর্ণঃ তদন্তের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয়দের মধ্যে মোঃ ইসরাইল ভূঞা, মোঃ নজরুল ইসলাম, মোঃ মেরাজুল ইসলাম, মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ সাইফুল ইসলাম ও মোঃ কাজল মিয়াসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

 


আরও পড়ুন

৩ Comments

  1. There are actually surely a lot of details like that to take into mind. That is a great point to bring up. I provide the thoughts above as general inspiration but clearly you will find questions like the one you bring up exactly where the most necessary thing will certainly be working in honest very good faith. I don?t know if best practices have emerged around things just like that, but I am certain that your job is clearly identified as a fair game.

  2. Advantageously, the post is really the sweetest on this notable topic. I concur with your conclusions and definitely will thirstily look forward to your upcoming updates. Saying thanks definitely will not simply just be sufficient, for the fantasti c clarity in your writing. I definitely will at once grab your rss feed to stay abreast of any updates. Genuine work and also much success in your business dealings!

  3. I just want to tell you that I’m new to blogging and honestly savored your web page. Very likely I’m planning to bookmark your website . You surely have terrific writings. Kudos for sharing with us your website page.

Comments are closed.