কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে বাড়ির সীমানার ওপর বেড়া নির্মাণ করাকে কেন্দ্র করে এক বিধবাকে মারধরের প্রতিবাদ করায় পিতা-পুত্রের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি গত ৯ জুলাই সোমবার ও ১০ জুলাই মঙ্গলবার উপজেলার চরকামালপুর এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার পর থেকে প্রতিপক্ষের হুমকীর মুখে চিকিৎস্যা ও মামলা করতে পারছেনা আহতরা।

উপজেলার চরকামালপুর গ্রামের মৃত রুসমত আলীর পুত্র কাইয়ুম মিয়া (৬০) অভিযোগ করে বলেন, গত সোমবার সকালে বাড়ির সীমানার ওপর বেড়া নির্মাণ করাকে কেন্দ্র করে তার মৃত চাচাত ভাই মিজানের স্ত্রী কাজল বেগম (৪০) কে একই বাড়ির মৃত আফতাব উদ্দিনের ছেলে মোঃ আবু তাহের (৫০) নির্মম ভাবে মারধর করে। এ সময় কাইয়ুম মিয়ার পুত্র মনির হোসেন (৩০) প্রতিবাদ করায় আবু তাহেরের ভাতিজা হাসেম (৩১) ও তার বন্ধু সবুজ (২৮) দা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত যখম করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরদিন সকালে হাসেমের বন্ধু চরকামারপুর উত্তর পাড়া গ্রামের সবুজ (২৮), এনাম (২৮), মধুমিয়া (৩০), ইকবাল (৩৫), তমু (৪২), রমু (৪০) সহ ১০/১৫ জন লোক কাইয়ুম মিয়াকে স্থানীয় চরকামালপুর নতুন বাজার থেকে ধরে বাজারের দক্ষিণ পাশে নিয়ে নির্মম ভাবে মারধর করে।

এ ঘটনার পর থেকে প্রতিপক্ষের হুমকীর মুখে আহতরা হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎস্যা করাতে পারছেনা। এমনকি আইনের আশ্রয় নিতেও বাঁধার সম্মুখিন হচ্ছে তারা।

এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ হাসেমের ভাই কাশেম জানান, বিধবা কাজল বেগমকে মারধরের সময় তার ভাই হাসেমও আহত হয়।