দেশের খবর - July 19, 2018

বগুড়ায় সোহাগ টেলিকম থেকে চুরির মালামাল উদ্ধার

দোকানের তালা ভেঙ্গে চুরি হয়েছিল ১টি ল্যাপটপ, ১২০টি বাটন মোবাইল ও ১১টি টাচ মোবাইল ফোন। ঘটনাটি ঘটেছিল বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার বালুয়াহাট বাজার এলাকায়। অবশেষে থানা পুলিশের ব্যাপক তৎপরতায় দুইজনকে আটকের পর তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার (১৮ জুলাই) সোনাতলা উপজেলার কর্পূর বাজারস্থ সোহাগ টেলিকম দোকান থেকে থেকে চোরাই ৬৩টি মোবাইল ফোন উদ্ধার হয়।

তবে ল্যাপটপ সহ বাঁকি ৬৮টি মোবাইল ফোন উদ্ধার এবং সোহাগ টেলিকমের মালিক সোহাগ হোসেনকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। সে চোর চক্রের দলনেতা বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবে চোর সিন্ডিকেটের সক্রিয় দুই সদস্যকে আটক করে মামলা দায়েরের পর বগুড়া কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এরা হলেন- সোনাতলা উপজেলার দক্ষিণ আটকরিয়া গ্রামের এনামুল হকের ছেলে উজ্জল হোসেন ও একই এলাকার আফজাল হোসেনের ছেলে আলী হোসেন।

বুধবার রাত ১১টার দিকে থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. শরিফুল ইসলাম মুঠোফোনে এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, সোহাগ টেলিকম দোকানে চোরাই মোবাইল ফোনগুলো রয়েছে জেনেই দোকানে অভিযান চালানো হয়। সোহাগ টেলিকমের মালিক সোহাগ হোসেন আত্মগোপন করেছে। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে। চুরির মালামাল ওই টেলিকমে রেখে বিক্রয় করে চোর সিন্ডিকেট, এমন খবরও আমাদের কাছে রয়েছে। সোহাগকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই সঠিক তথ্য বের হবে। চোর সিন্ডিকেটের জায়গা সোনাতলার মাটিতে হবে না।

উলেখ্য, গত ১২ জুলাই রাতে উপজেলার বালুয়াহাট এলাকার আবু জোবায়ের সনেটের দোকানের তালা ভেঙ্গে চোরেরা ১টি ল্যাপটপ, ১২০টি বাটন মোবাইল ও ১১টি টাচ মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় দোকান মালিক গত ১৫ জুলাই থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে চোর চক্রের সদস্য উজ্জল ও আলী হোসেনকে আটক করে।

 


আরও পড়ুন