অপরাধ - July 20, 2018

বগুড়ায় পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীকে হত্যা করলো পাষন্ড স্বামী

ইট ভাঙ্গার কাজ করতেন কিরণী বালা (৪৩)। স্বামীর তৃতীয় স্ত্রী ছিলেন তিনি। পাষন্ড স্বামী টাকার পাগল। বিয়ে করেছেন তিনটি। স্বামীর অত্যাচারে এক স্ত্রী ডিভোর্স দিয়েছেন। ২য় স্ত্রী থাকেন অন্যের বাড়িতে। তৃতীয় কিরণী বালা থাকতেন স্বামীর সাথে। ইট ভাঙা এবং রাজমিস্ত্রির কাজ করে স্বামীকে দিতেন। তবুও পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। অবশেষে পরকীয়া সন্দেহে তৃতীয় স্ত্রী কিরণী বালাকে ঘুমন্ত অবস্থায় ব্লেড দিয়ে পেটে আঁচড় কেটে হত্যা করলো পাষন্ড স্বামী সুরেশ প্রামনিক।

বগুড়ার নন্দীগ্রাম পৌরসভার কালিকাপুর গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় নিহত কিরণী বালার স্বামী সুরেশ প্রামনিককে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের পর স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে পাষন্ড স্বামী। স্ত্রীর সাথে অন্য কারো পরকীয়া আছে, এই সন্দেহেই স্ত্রীকে হত্যা করেছে বলে দাবি পুলিশের। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ২টার দিকে নারী শ্রমিক কিরণী বালাকে ধারালো ব্লেড দিয়ে পেটে আঁচড় কাটে। রাত সাড়ে ৩ টায় তিনি মারা যান। খবর পেয়ে রাতেই থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করে এবং হত্যাকান্ডে সম্পৃক্ত সন্দেহে নিহতের স্বামী সুরেশ প্রামনিককে আটক করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই সুরেশ দাবি করছিল, গভীর রাতে কে বা কাহারা তাঁর শয়ন ঘরে ঢুকে স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে গেছে। কিন্তু পুলিশের হাতে আটকের পর শুক্রবার সকাল ৯টায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে পাষন্ড স্বামী। এঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।

নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, স্ত্রী হত্যাকারী স্বামীকে আটক করা হয়েছে। সে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে। হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ধারালো ব্লেড উদ্ধার করা হয়েছে।

 


আরও পড়ুন

২ Comments

  1. I just want to tell you that I’m very new to blogging and certainly savored this page. Almost certainly I’m want to bookmark your blog post . You definitely come with excellent well written articles. Bless you for sharing with us your webpage.

Comments are closed.