করিমগঞ্জ - October 20, 2018

করিমগঞ্জে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো দুর্গোৎসব

বাঙালী সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার শেষ দিন আজ। নানা আচারের মধ্য দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার মহানবমী পালিত হয়। আজ শুক্রবার শুভ বিজয়া দশমী। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে আজ সমাপ্তি ঘটেছে পাঁচদিন ব্যাপী এই ধর্মীয় উৎসবের। আজ বিজয়া দশমীর দিনে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে মর্ত্য ছেড়ে কৈলাসে স্বামীগৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী দুর্গা। পেছনে ফেলে যাবেন ভক্তদের পাঁচ দিনের আনন্দ-উল্লাস আর বিজয়ার অশ্রু।

১৫ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে শুরু হয় পাঁচ দিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। সকাল ১০টার মধ্যে আজকের পূজা এবং দর্পন বিসর্জনসহ সহ সকল আয়োজন শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ করিমগঞ্জ। পরে বিকাল থেকে শুরু হয়েছে প্রতিমা বিসর্জন। এবার বির্সজন বিকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যার মধ্যেই শেষ হয়েছে।

প্রতিবারের মতো করিমগঞ্জে  মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাষ্টমী ও মহানবমীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজার হাজার নারী-পুরুষ ধর্মীয় নানা আচার অনুষ্ঠান পালন করেছেন।

পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার মর্ত্যলোকে এসেছিলেন ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে। পঞ্জিকা মতে এর ফল ‘ছত্রভঙ্গ’। শাস্ত্রজ্ঞরা বলছেন, ঘোড়ায় আগমন সেভাবে শুভ বলে মনে করা হয় না, তাই দুর্যোগের একটা আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে এবং মা দূর্গা স্বর্গালোকে বিদায় নেবেন দোলায় করে। শাস্ত্র মতে এমনই জানানো হচ্ছে। পঞ্জিকা অনুযায়ী এভাবে গমনের ফল ‘মড়ক’। মনে করা হচ্ছে মায়ের দোলায় গমনও খুব একটা সুখকর নয়। এর ফলাফল বেশ নেতিবাচক।

বিসর্জন আয়োজন সুষ্টু এবং সুন্দভাবে সম্পন্ন করতে করিমগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ এবং পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। করিমগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিপন সরকার জানান, এবার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পূর্ব নির্দেশিত ঘোষনা অনুযায়ী প্রতিমা বির্সজন সন্ধ্যার মধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে।

করিমগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি পরিমল সরকার বলেন, প্রতি বারের ন্যায় এবারও করিমগঞ্জে শারদীয় দুর্গোৎস শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। এখানে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ঘটেনি, সরকার ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্ছ সহযোগিতা দেওয়া হয়েছে।” আমরা সরকার ও প্রশাসনের কাছে কৃতজ্ঞ।

করিমগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মুজিবুর রহমান বলেন, করিমগঞ্জে শারদীয় দুর্গা পুজা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয়েছে। এখানে  চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় ছিল। উৎসবকে ঘিরে উপজেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

 


আরও পড়ুন