ডিএপি সারের দাম প্রতি কেজিতে ৯ টাকা কমানোর সিদ্ধান্ত

কৃষকদের স্বার্থে ফসলের উৎপাদন ব্যয় কমাতে ডিএপি (ডাই-অ্যামোনিয়াম ফসফেট) সারের দাম প্রতি কেজিতে ৯ টাকা কমিয়ে ১৬ টাকা নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।  

বুধবার সচিবালয়ে সারের মূল্য হ্রাসের বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ইউরিয়া সারের ব্যবহার হ্রাস ও ডিএপি সারের ব্যবহার বৃদ্ধিসহ কৃষকদের উৎপাদন খরচ কমানোর লক্ষ্যে দেওয়া প্রস্তাবটি সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন করেছেন।

কৃষিমন্ত্রী জানান, এ জন্য প্রতি কেজি ডিএপি সারে সরকারকে ২৪ টাকা করে বছরে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হবে। ডিএপি সারের চাহিদা বছরে ৪ থেকে ৫ লাখ টন রয়েছে।

মন্ত্রী জানান, এখন সারের মোট মজুত ২৪ লাখ ৩২ হাজার টন, যার মধ্যে টিএসপি ৩ লাখ ৪৯ হাজার টন, ডিএপি ৫ লাখ ৯৭ হাজার টন, এমওপি ৭ লাখ ১৫ হাজার টন ও ইউরিয়া ৭ লাখ ৭১ হাজার টন।

তিনি বলেন, দেশে বার্ষিক সারের চাহিদা ৫০ লাখ টন। অন্যান্য বছরের তুলনায় সব সারই বেশি আছে।


আরও পড়ুন