সারাদেশে কৃষক অ্যাপসের মাধ্যমে ধান সংগ্রহ করা হবে : খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, আমন ধান সংগ্রহ অভিযানে এবারেই দেশের ১৬টি উপজেলায় পাইলট মের আওতায় কৃষক অ্যাপসের মাধ্যমে সরাসরি কৃষকের কাছে থেকে ধান সংগ্রহ করা হচ্ছে। কৃষি মন্ত্রণালয় যেভাবে তালিকা দিয়েছে সেই তালিকা অনুযায়ী স্বচ্ছতার সাথে জেলা ও উপজেলাগুলোতে খাদ্য সংগ্রহ কমিটি তত্ত্বাবধানে কৃষকদের উপস্থিতিতে স্বচ্ছতার সাথে ধান কেনা হচ্ছে এবং এই ধারা আগামীতে অব্যাহত থাকবে।
শুক্রবার সকালে নওগাঁ সদর খাদ্য গুদামে অভ্যন্তরীন আমন সংগ্রহ ২০১৯-২০২০ মওসুমে আমন ধান-চাল সংগ্রহ এবং ডিজিটাল খাদ্যশষ্য ব্যবস্থপনার আওতায় ‘কৃষকের অ্যাপসের’ মাধ্যমে আমন ধান সংগ্রহের উদ্ধোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, আগামী বোরো মওসুমে অ্যাপসের মাধ্যমে আরও ধান কেনা বৃদ্ধি করা হবে এবং সামনে আমন মওসুম আসতে আসতে শতভাগ অ্যাপসের মাধ্যমে ধান সংগ্রহ নিশ্চিত করা হবে। আমাদের ইচ্ছা আছে, আমরা সারা দেশে লটারি না করে, আস্তে আস্তে কৃষি অ্যাপসের মাধ্যমে ধান সংগ্রহ করব।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেন, ১ নভেম্বরে থেকে সারাদেশে ধান কেনা শুরু করা হয়েছে। কিন্তু যেগুলো আ্যপসের মাধ্যমে ছিলো এবং আ্যাপসের নিবন্ধনের কারণে একটু দেরি হয়েছে প্রথম বছর বলে। আগামী বছরে সঠিক সময়ে ধান সংগ্রহ শেষ করা হবে।

নওগাঁর জেলা প্রশাসক হারুন -অর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার রাশিদুল হক, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জিএম ফারুক হোসেন পাটওয়ারী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা চালকল মালিক গ্রুপের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম রফিক, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন, নওগাঁ সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ মোহাজের হাসান, সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আতিকুল ইসলামসহ খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও চালকল মালিক গ্রুপের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সোনালী অটোমেটিক রাইস মিলের সত্ত্বাধিকারী কমল চৌধুরী ২১ মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করেন। খাদ্যমন্ত্রী তার হাতে ওজন, মান ও মজুদ সদনপত্র তুলে দেন।

অপরদিকে, কৃষক অ্যাপসের মাধ্যমে নওগাঁ সদর উপজেলার বর্ষাইল ইউনিয়নের চক-আতিথা গ্রামের কায়সার আলীর কাছে থেকে ১ মেট্রিক টন চাল কেনার মাধ্যমে আমন মওসুমের ধান ও চাল কেনার উদ্বোধন করা হয়।

চলতি মওসুমে নওগাঁ সদর খাদ্য গুদামে ৩৬ টাকা কেজি দরে ৬ হাজার ১৫৮ মেট্রিক টন চাল, ৩৫ টাকা কেজি দরে ৮৬৬ মেট্রিক টন আতপ চাল এবং কৃষক অ্যাপের মাধ্যমে ২৬ টাকা কেজি দরে ১ হাজার মেট্রিক টন ধান কেনা হবে।

এছাড়া, চলতি বছরে নওগাঁ জেলার ১৯টি খাদ্য গুদামে ৩৬ টাকা কেজি দামে ১৭ হাজার ১১৪ মেট্রিক টন চাল, ৩৫ টাকা কেজি দামে ২ হাজার ৩৮১ মেট্রিক টন আতপ চাল এবং ২৬ টাকা কেজি দামে সরাসরি কৃষকের কাছে থেকে ১৯ হাজার ৯১২ মেট্রিক টন ধান কেনা হবে।


আরও পড়ুন