হোসেনপুর - September 5, 2020

হোসেনপুরে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ২ কিশোরী

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলায় দেওয়ান হাবিবা (১৫) ও মোছা. রনি আক্তার (১৪) নামে দুই কিশোরীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম জাহিদুর রহমান ও সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ওয়াহিদুজ্জামান।

শুক্রবার দুপুরে খবর পেয়ে উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের সুরাটি গ্রাম ও পুমদী ইউনিয়নের আতিরা গ্রামের মেয়ের বাড়ি গিয়ে এ দুই বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন তারা।

বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া দেওয়ান হাবিবা (১৫) উপজেলার সুরাটি গ্রামের দেওয়ান স্বপনের মেয়ে ও সুরাটি মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং মোছা. রনি আক্তার (১৪) একই উপজেলার আতিরা গ্রামের মো. গোলাপ মিয়ার মেয়ে ও মাধখলা মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের সুরাটি গ্রামের দেওয়ান স্বপনের বাড়িতে দেওয়ান হাবিবার বিয়ের আয়োজন করা হয়। এ খবর উপজেলা প্রশাসনকে জানায় স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে দ্রুত বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে দেওয়ান হাবিবার বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এস এম জাহিদুর রহমান।

বাল্যবিয়ের কুফল ও সরকারের বিধি বিধান বিষয়ে মেয়ের বাবাকে অবগত করা হলে ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে দেবেন না বলে তিনি মুচলেকা দেন।

অপরদিকে উপজেলার পুমদী ইউনিয়নের আতিরা গ্রামের গোলাপ মিয়া বাড়িতে রনি আক্তারের বিয়ের আয়োজন করা হয়। পরে খবর পেয়ে দ্রুত বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে রনি আক্তারের বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াহিদুজ্জামান। এসময় বাল্যবিয়ে আয়োজন করায় মেয়ের বাবা গোলাপ মিয়াকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম জাহিদুর রহমান এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওয়াহিদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


আরও পড়ুন