দেশের খবর - January 20, 2021

দীর্ঘদিনেও চালু হয়নি চিলাহাটী ফায়ার স্টেশন

নীলফামারীর ডোমারের চিলাহাটি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ২৭মাস আগে করা হলেও তা জনগনকে কোন সেবা দিতে পারছে না। পানিতে মাত্রাতিরিক্ত আয়রনের উপস্থিতি থাকায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগকে ভবন হস্তান্তর করতে পারছে না গণপুর্ত বিভাগ।

গত ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু গভীর নলকূপের পানিতে মাত্রাতিরিক্ত আয়রন থাকায় উদ্বোধনের ২৭মাস পেরিয়ে গেলেও শুরু হয়নি এর সেবা কার্যক্রম। এতে আগুন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ওই এলাকার ৩০হাজার পরিবার। গত দু’ বছরে অন্তত দেড়’শ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমান দাড়িয়েছে কোটি টাকার উপরে। আগুন নেভাতে গিয়ে দ্বগ্ধ হয়ে প্রাণ গেছে দুইজনের। পুড়ে মারা গেছে গরু- ছাগল-হাঁস-মুরগি। ছাই হয়ে গেছে সঞ্চিত অর্থ, ধান, চাল, আসবাবপত্র।

ভোগডাবুড়ী এলাকার রাশেদুল ইসলাম প্রামানিক ফিলিপ জানান, ডোমার উপজেলা শহরে একটি ফায়ার স্টেশন থাকলেও উত্তরের ভোগডাবুড়ি ও কেতকিবাড়ী ইউনিয়ন ভারত সীমান্ত পর্যন্ত এবং অপর দু’টি ইউনিয়ন জোড়াবাড়ী ও গোমনাতীর দুরত্ব প্রায় ২০ থেকে ২৩ কিলোমিটার। অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলে ডোমার থেকে ফায়ারের গাড়ি আসার আগেই সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সর্বস্ব হারিয়ে ক্ষতিগ্রস্থরা হয়ে পড়ে পাগল প্রায়।

একই এলাকার সাইদুল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করার পরেও ফায়ার স্টেশনের কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় গত ২৭মাসে আগুনে পুড়ে মারা গেছে দুইজন মানুষ। পুড়ে ছাই হয়ে গেছে গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগি, ধান, চাল, নগদ অর্থ ও আসবাবপত্র। চিলাহাটী ফায়ার স্টেশনের সেবা কার্যক্রম চালু থাকলে এ ক্ষয়ক্ষতি হতো না।

৩৩শতক জমিতে পুর্নাঙ্গ স্টেশন ভবন নির্মাণে বরাদ্ধ দেয়া হয় ৩কোটি ২২লাখ টাকা। নীলফামারী গণপুর্ত বিভাগ দরপত্র আহ্বান শেষে (মেসার্স খাজা বিলকিস রাব্বী ,মহাখালি ঢাকা) ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বিগত ২০১৭ সালের ১০জানুয়ারী দেয়া হয় কার্যাদেশ। গত ২০১৮সালের ১০জুলাইর মধ্যে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মূল ভবন, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ আর নিরাপদ পানির জন্য স্থাপন করে গভীর নলকুপ। স্থাপিত গভীর নলকুপের পানি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে রংপুর জোনাল ল্যাবটেরীতে পরীক্ষা-নীরিক্ষায় মাত্রাতিরিক্ত আয়রনের উপস্থিতি ধরা পড়ে। যা জনস্বাস্থ্য আর পানিবাহী গাড়ীর রিজার্ভার ট্যাংকের জন্য ক্ষতিকর।

এবিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাইড ইঞ্জিনিয়ার আবু জুয়েল বলেন, ভবনের নির্মান কাজ শেষ করা হয়েছে। পানিতে সামান্য পরিমান আয়রন পাওয়া গেছে। এজন্য ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ ভবনটি বুঝে নিচ্ছেন না।

নীলফামারী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক আমিরুল ইসলাম সরকার জানান, চিলাহাটী ফায়ার স্টেশনের জন্য জনবল ও গাড়ী মজুদ আছে। ফায়ার স্টেশনে স্থাপিত গভীর নলকুপের পানিতে ক্ষতিকর মাত্রাতিরিক্ত আয়রন। যা পান করলে ক্ষতি হবে জনস্বাস্থের। এ পানি ফায়ারের গাড়িতে উঠানো হলে অল্প সময়ের মধ্যে গাড়ি নস্ট হয়ে যাবে। আয়রনের উপস্থিতির বিষয়টি সমাধানের জন্য গণপূর্ত বিভাগকে বারবার জানানো হলেও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

এ বিষয়ে নীলফামারী গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তৌহিদুজ্জামান সংবাদকর্মীদের সাথে কথা বলতে অপরাগত প্রকাশ করেন।


আরও পড়ুন