দেশের খবর - February 2, 2021

আমতলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তঃসত্ত্বা নারী নিহত, আহত ৩

পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কে দুই বাসের সংঘর্ষে রেহেনা বেগম (৩৫) নামে চার মাসের এক অন্তঃসত্ত্বা নারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তার সাথে থাকা দুই শিশুসহ তিনজন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ওই মহাসড়কের আমতলীর শাখারিয়া বাসস্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহত রেহেনা বেগম আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের কালীবাড়ী গ্রামের রাজমিস্ত্রি আফজাল হোসেন বেপারীর স্ত্রী। আহতরা হলেন নিহতের মেয়ে রিয়ামনি (৪), চাচি শাশুড়ি পিয়ারা বেগম (৬০) ও নাতনি খাদিজা আক্তার (৫)।

জানা গেছে, রেহেনা বেগম তার মেয়ে, নাতনি ও চাচি শাশুড়িকে নিয়ে পটুয়াখালীর ফুলতলা গ্রামে শ্বশুর ওয়াজেদ মৃধার বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বাড়ির সামনে থেকে মেহেলি ক্ল্যাসিক গাড়িতে ওঠেন। ওই গাড়িটি পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের শাখারিয়া নামক বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী উঠানো ও নামানোর জন্য অবস্থান করছিল। এ সময় গলাচিপা থেকে আসা নিশাত পরিবহন নামের একটি বাস দেখে মেহেলি ক্ল্যাসিক গাড়িটি বাসস্ট্যান্ড থেকে সরে যেতে তৎপর হয়। কিন্তু নিশাত পরিবহন গাড়িটি মেহেলি গাড়ির সামনে যাওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষ ঘটে। এতে মেহেলি গাড়ির ইঞ্জিন বক্সে বসে থাকা যাত্রী রেহেনা বেগম, তার মেয়ে, চাচি শাশুড়ি ও নাতনি গাড়ি থেকে সড়কে ছিটকে পড়েন। পরে গাড়ির চাকায় রেহেনা বেগম ও তার কোলে থাকা মেয়ে পিষ্ট হন। এছাড়াও পিয়ারা বেগম ও তার নাতনি খাদিজা গুরুতর আহত হন। ঘটনাস্থলে অন্তঃসত্ত্বা রেহেনা বেগম নিহত হন।

স্থানীয়রা গুরুতর আহত রিয়ামনি, খাদিজা ও পিয়ারা বেগমকে উদ্ধার করে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

নিহতের দেবর মো: জাফর বেপারী বলেন, গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে আমার ভাবি নিহত হয়েছেন। আহত রিয়ামনি, খাদিজা ও পিয়ারা বেগমকে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আমতলী থানার ওসি মো: শাহ আলম হাওলাদার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছি। ঘাতক বাসটি জব্দ করা হয়েছে।


আরও পড়ুন