দূর পরবাস - February 21, 2021

মিশরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

কায়রোস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ২০-২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১ পালিত হয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশী এবং স্থানীয় ও বিদেশী অংশগ্রহণকারীদের সুবিধার্থে ২০ ফেব্রুয়ারি শনিবার সন্ধ্যায় শুরু হয় মহান ভাষা দিবসের মূল অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত, তরজমা এবং ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত এবং দশে ও জাতরি শান্ত,ি সমৃদ্ধি ও উন্নতি কামনায় বশিষে মোনাজাত করা হয়। অতপর অমর ভাষা শহীদদরে স্মৃতির উদ্দশ্যেে এক মনিটি নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে প্রেরিত মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শুনানো হয়। পরবর্তী পর্যায়ে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটির তাৎপর্যের উপর আলোচনা শুরু হয়।

আলোচনার সূত্রপাত করা হয় কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা বিভাগের ¯œাতোকোত্তর ছাত্রকে দিয়ে। ক্রমান্বয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশন-এর সভাপতি, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং জাতিসংঘে কর্মরত বাংলাদেশী প্রবাসী নাগরিকবৃন্দ।

মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মনিরুল ইসলাম মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ইতিহাস ও তাৎপর্যের উপর বক্তব্য উপস্থাপন করেন। বক্তব্যের শুরুতেই ভাষা শহীদ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নবিদেন করনে। তনিি তাঁর বক্তৃতায় একুশরে চতেনায় উজ্জীবতি হয়ে একটি র্মযাদাশীল দশে হসিাবে বাংলাদশেকে গড়ার কাজে প্রত্যকেকে তার নজি নজি অবস্থান থকেে র্সবাত্মক আত্মনয়িোগ করার আহ্বান জানান। তনিি আরো বলনে য,ে ২০২০-২০২১ সালে জাতরি পতিা বঙ্গবন্ধু শখে মুজবিুর রহমানরে জন্মশতর্বাষকিী ও ২০২১ সালে বাংলাদশেরে স্বাধীনতার সুর্বণজয়ন্তী উদ্ধসঢ়;যাপিত হচ্ছে যা বাঙ্গালী জাতরি ইতহিাসে অনন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে।

আলোচনা শেষে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রবাসী বাংলাদেশী ছাড়াও মিসরীয়গণ উক্ত অনুষ্ঠানের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা পরিবেশন করেন, যা দর্শকদের বিমুগ্ধ করে রাখে। পরদিন সকাল ৯ঃ৩০ ঘটিকায় দূতাবাসে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ করা হয়। দূতাবাস প্রাঙ্গণে মান্যবর রাষ্ট্রদূত, দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রবাসী বাংলাদেশীদের উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। তারপর মান্যবর রাষ্ট্রদূত দূতাবাসের অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্থানীয় ও প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে কায়রোর বভিন্নি বশ্বিবদ্যিালয়ে র্কমরত বাংলাদশেী অধ্যাপক, শক্ষর্িাথী, কর্মজীবী এবং বভিন্নি পশোয় নিয়োজিত পশোজীবীরা উপস্থতি ছলিনে। অনুষ্ঠান শষেে উপস্থতি সকলকে রাতের খাবারে আপ্যায়ন করা হয়।


আরও পড়ুন