কিশোরগঞ্জে হত্যা মামলায় ২ জনের ফাঁসি, ১৩ জনের যাবজ্জীবন

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলায় কৃষক তাজুল ইসলাম হত্যা মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এসময় সাজাপ্রাপ্ত প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে আর্থদণ্ডও দেয়া হয়েছে।

সোমবার সকালে কিশোরগঞ্জের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আ. রহিম এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে দুই আসামি ছাড়া সব আসামি উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া এ মামলার অপর আসামি সোহেল রানার বয়স কম হওয়ায় তার বিচার হবে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিরা হলেন- সাইকুল ইসলাম ও গোলাপ মিয়া।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- মো. সাইদু, আ. হামিদ, আ. রহিম, বাদল মিয়া, মোস্তফা, মিজান, সুলতান, রায়হান, হাবিব, ফারুক, জলে বেগম, আনিসা বেগম ও হেনা বেগম। এদের মধ্যে মিজান ও সুলতান পলাতক রয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের মৃত আ. ছাত্তারের ছেলে কৃষক তাজুল ইসলামের সঙ্গে একই এলাকার সাইকুল ইসলামের জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ২০০১ সালের পহেলা জানুয়ারি দুপুরে বাড়ির পাশে জমিতে হালচাষ করার সময় তাজুল ইসলামের ওপর হামলা করেন আসামিরা। এ সময় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাত ও পিটুনিতে ঘটনাস্থলে মারা যান কৃষক তাজুল ইসলাম। আহত হন আরও কয়েকজন।

এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে মালা বেগম বাদী হয়ে একই দিন ১৬ জনকে আসামি করে কটিয়াদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে ২০১১ সালের ৫ মে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কটিয়াদী থানার ওসি মো. ফরিদ আহমেদ। সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে আদালতে রায় ঘোষণা করা হয়।


আরও পড়ুন